ভিজিটে আসা প্রবাসীদের চাকরির নামে টাকা নিয়ে উধাও সিলেটের জাহাঙ্গীর।

আরব আমিরাত প্রতিনিধিঃ

হাজারো স্বপ্ন নিয়ে, পরিবারের মুখে হাসি ফোটানোর লক্ষে, পরিবার পরিজন ছেড়ে পাড়ি জমায় হাজারো বর্গমইল দুরে দুর প্রবাসে। সবারই মনে আশা লালন করে প্রবাসে গিয়ে নিজের কষ্টের উপার্জন দিয়ে সুখে রাখবে তার প্রিয়জনদের।

তাদেরই একজন বাংলাদেশ থেকে ভিজিটে আসা মাদারীপুরের ফয়সাল, সে আমাদের প্রতিনিধিকে জানান ফেইসবুক গ্রুপে পাওয়া কাজের সন্ধান থেকে মোবাইল নম্বর নিয়ে তারা ১১জন যোগাযোগ করেন আজমান প্রবাসী সিলেটের জাহাঙ্গীর এর সাথে, জাহাঙ্গীর এর দেয়া স্থানে পৌছালে তাদেরকে সেখান থেকে ক্যাম্পে নিয়ে যান সিলেটের মোক্তার ও মাসুম, জাহাঙ্গীর সহ তাদের তিনজন এর সম্মুখে জন প্রতি তিন হাজার দেরহাম করে দেয়া হলে তারা তাদেরকে কাজে যোগদান করাবে বলে আজমান জয়েন্ট সুপার মার্কেট এর পেছনে এক ক্যাম্পে রাত্রিযাপন করার ব্যবস্থা করে দেন। পরবর্তীতে এক সপ্তাহ অতিবাহিত হয়ে গেলেও তাদের কাজের কোন সন্ধান দিতে পারেনি মাসুম, জাহাঙ্গীর ও মোকতাররা, এভাবেই কাটিয়ে দেয় ১মাস, কাজের জন্যে আসা প্রবাসীদের অনেকেরই ভিসার মেয়াদ শেষের পথে, এমন সময় হঠাৎ নিখোঁজ তারা তিনজন, কোন খোজ খবর না পেয়ে এক একজন এক এক দিকে যে যার মতো কাজের সন্ধানে চলে যায় কাজের জন্যে আসা ব্যক্তিরা, তাদের মধ্যে কয়েকজন এখনো ভিজিটের জরিমানার কারনে ভিসা লাগাতে পারেনি বলে জানান। তারা সবাই তন্নতন্ন করে খুজে বেড়াচ্ছে জাহাঙ্গীরদের কোথায় সন্ধান পাচ্ছেনা তাদের।

নতুন করে একই ফাঁদে পা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ থেকে আসা মোফাজ্জল, মুস্তাকিম, জুয়েল, সুজন সহ ৬জন প্রবাসী, তারাও ফেইসবুকের মাধ্যমে কাজের খবর পেয়ে তার সাথে যোগাযোগ করলে সে তাদেরকে স্থানীয় আরবির কোম্পানি নুর আল সাফাতে কিচেন হেল্পার এর কাজ আছে বলে সবার কাছে দিবে তিন হাজার দেরহাম করে নিয়ে জাবেল আলী হোয়াইট ক্যাম্পে থাকার ব্যবস্থা করে দেন, আজ কাল কাজে যোগদান করাবে বলে ১মাস অতিবাহিত হলেও তার কথা কাজের কোন মিল না পাওয়ায় ক্যাম্পে থাকা লোকদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন জাহাঙ্গীর অনেক লোক এই ক্যাম্পে রেখে টাকা নিয়ে আর যোগাযোগ না করার অভিযোগ রয়েছে তার নামে।

জাহাঙ্গীর ফেইসবুকে কাজের সন্ধান আছে বলে ভিজিটে আসা লোকদের সাথে যোগাযোগ করে ক্যাম্পে পাঠান আর ক্যাম্পে লোকদের থেকে পেমেন্ট নিয়ে থাকার ব্যবস্থা করেদেন ইমরান,রুবেল,রনি সহ কয়েকজন।

জাহাঙ্গীরদের মতো ধান্দাবাজদের হাত থেকে মুক্তি চায় ভিজিটে আসা প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

আরো পড়ুন