সুবর্ণচরে রাতের অন্ধকারে গাছ কেটে দিয়েছে পতিপক্ষ

সাইফুল ইসলাম রাসেল,  নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ নোয়াখালী সুবর্ণচরে পূর্ব শত্রুতার জেরে রাতের অন্ধকারে প্রায় ২ লক্ষ টাকার ৩ শতাধিক গাছ কেটে দিয়েছে পতিপক্ষ। এতে অসহায় হয়ে পড়েছেন বৃক্ষের মালিক ইব্রাহিম খলিল। এর আগেও ইব্রাহিমের পুকুরে বিষ ঢেলে প্রায় ১০ লক্ষ মাছ হত্যা করে পতিপক্ষরা । এঘটনায় ইব্রাহিম খলিলের স্ত্রী বাদী হয়ে চরজব্বার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ঘটনাটি ঘটে ১৫ জুন রাত ১২ টায় সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবিলী ইউনিয়নের পশ্চিম চরজব্বার গ্রামের দিনমজুর ইব্রাহিম খলিলের বাড়ীতে। ক্ষতিগ্রস্ত দিনমজুর ইব্রাহিম খলিল (৩৬) পশ্চিম চরজব্বার গ্রামের মৃত তাজুল হকের পুত্র।
ক্ষতিগ্রস্ত ইব্রাহিম খলিল বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে পশ্চিম চরজব্বার গ্রামের হাফেজ আহম্মদের ছেলে জসিম (৪৫), নুরনবী সোহাগসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন গভীর রাতে তার গাছ গুলো কর্তন করে দিয়ে যায়। গাছ কাটার শব্দে ইব্রাহিমের স্ত্রী আয়েশা আক্তর বের হয়ে অভিযুক্তদের বাঁধা দিলে তারা তাকে গুম খুনের হুমকি দেন এবং মারধর করেন।

ইব্রাহিম অভিযোগ করে বলেন, ১৫ জুন তিনি প্রতিদিনের মত কাঁঠাল বিক্রি করে রাত ১ টায় বাড়ী ফেরেন, বাড়ীতে প্রবেশের সময় দেখেন জসিম দৌঁড়ে তার বাড়ি থেকে বের হয়ে যাচ্ছে। বাড়ীতে এলে তার স্ত্রী ঘটনাটি জানায়। পরে তিনি এলাকার স্থানীয় ব্যক্তিদের বিষয়টি অবহিত করেন। পরদিন ইব্রাহিমের স্ত্রী উপরোক্ত অভিযুক্তদের আসামি করে চরজব্বার থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। ইব্রাহিম আরো বলেন, এর আগেও তিনি পুকুরে মাছ চাষ করলে জসিম, সোহাগ তারা পুকুরে বিষ ডেলে প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার মাছ নিধন করেন।

এ বিষয়ে অভিযুকক্ত জসিম উদ্দিনকে মুঠোফোনে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে, তিনি অস্বিকার করে বলেন, আমি এসব জানিনা, কে করেছে সেটা বলতে পারবোনা

 

চরজব্বার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) জিয়াউল হক তরিক খন্দকার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গাছ কাটার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো পড়ুন