সুবর্ণচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে হয়রানি

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার হালিম বাজারে সবুজ ও সিরাজ নামের দুই পোল্ট্রি ব্যবসায়ীর ভুল বুঝাবুঝির ঘটনাকে ভিন্ন খাতে নেয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে কয়েকদিন যাবত ঐ এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

স্থানীয়দের ভাষ্যমতে, ১৩ এপ্রিল রাতে উপজেলার হালিম বাজারে দুই পোল্ট্রি ব্যবসায়ীর মধ্যে ব্যবসায়ীক ভুল বুঝাবুঝির কারণে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এসময় বাজারে স্থানীয় অন্য ব্যবসায়ীরা ও নৈশ প্রহরী ঘটনাটি বাজারের সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতিকে অবহিত করলে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি সমাধান করে দেন। দুই পক্ষের মধ্যে বিবাদমান সমস্যা মিটিয়ে ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। পরে ঘটনার এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলে ব্যবসায়ী সবুজ ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করতে মুল ঘটনার বিপরীতে চাঁদাবাজি ও মারামারি ঘটনা উল্লেখ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইন পোর্টালে মিথ্যা অভিযোগ করতে থাকেন। এতে করে হালিম বাজার এলাকায় ব্যবসায়ী ও স্থানীয়দের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় ব্যবসায়ী সিরাজের অভিভাবক ফয়েজ মিয়া ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক বেলায়েত হোসেনকে অবহিত করলে তিনি ওয়ার্ড মেম্বার ছিদ্দিক উল্যাহ, সাবেক মেম্বার আবুল হোসেন ছুট্টি,উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আমির খসরু মাহমুদকে নিয়ে বিষয়টি মিমাংসার উদ্যোগ নিলে ব্যবসায়ী সবুজ কোন আলোচনা করতে রাজি হননি।

ব্যবসায়ী সিরাজ বলেন, “দীর্ঘদিন যাবৎ সুনামের সহিত ব্যবসা করে আসছি। আমাকে ব্যবসায়ীক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করতে নানান দিক থেকে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছেন।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও একটি অনলাইন পোর্টালে আমার সর্ম্পকে উল্টো লিখে আমার উপর ছাপ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে।”

 

তিনি আরো অভিযোগ করেন, জেলার কালিতারা ও মাইজদী থেকে সন্ত্রাসী এনে আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন।গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে। আমার বিরুদ্ধে উল্টো চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে আমাকে ব্যবসায়ীক ও সামাজিক ভাবে হেয় করছে। ব্যবসায়ী সবুজ জানান, তিনি কোন বিচার পাননি।তিনি বিষয়টি কোর্টের মাধ্যমে সমাধান করবেন।

 

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে ৬নং চরআমান উল্যাহ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক বেলায়েত হোসেন জানান,হালিম বাজারের দুই ব্যবসায়ীর মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। আমি বিয়ষটি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বসার জন্য বললেও অপর পক্ষের ব্যবসায়ী সবুজ বসতে রাজি হননি। হাতাহাতির ঘটনাকে অন্য খাতে নিয়ে বিশৃংখলা সৃষ্টি করছে।

 

চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল হক জানান, তদন্ত সাপেক্ষে অভিযোগের সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

আরো পড়ুন