সাংবাদিক এ আর সোহেব চৌধুরীর “অপূর্ণতা”

বিনোদন ডেস্ক

—অপূর্ণতা—

—-এআর সোহেব চৌধুরী—

হে কবি
তোমায় আমি বলি
এ শহরের ফ্যাঁকাসে বাস্তবতা
আমার স্বপ্নের মতো রঙিন নয়,
তবুও সুখ আমার অসুখময়।
হারিয়ে গেছে নির্জনতায় ;
হে কবি,
বেকারত্বে আমার গোলাপি ভালোবাসা
আজ হয়েছে নীল।
চোখের ঘুম ছো মেরে ডানা মেলেছে
দুপুর আকাশের ঐ ধূসর রঙা চিল।
হে কবি,
আমি তাকে জানি তবুও
নীলে’র মালাবদল হয়নি
টাকাকড়ির জন্য,
বেচারা সারাজীবন
পরিবারের মুখে তুলে দিলো অন্য।
হে কবি,
তুমি শুনো?
পুত্রের চাকুরী হওয়ার ক্ষণে
প্রয়াত হলেন পিতা,
নীল গেলো পূর্ণতার খোঁজে শরতের ঐ কাশবনে ;
ফিরে আর আসেনি এ ধুলোবালির যান্ত্রিকতায়।
হে কবি,
আমি তাকে দেখেছি
আনন্দে’র চৌদেয়ালী খোপে
ছিল এক জোড়া ফুটফুটে গিরিবাজ
অচিন দেশে চলে গেলো শখের কপোতী!
সেজে মনের সাজ।
আনন্দের পূর্ণতা আজ
তবুও অপেক্ষায় বারোমাস।
হে কবি
আমি তাকে চিনি
এক চা ওয়ালা তিনি
অপূর্ণ সুখের পূর্ণতা পেয়েছিলেন যিনি
তার নাম আব্দুল আলী
দোকানীর চোখেমুখে চেরাগের কালি ;
সংসারে যাহার ছনের চালা
মনে নেই তবুও জ্বালা।
চালের ফুটোয় রাত্তি কাটে জ্যোৎস্নাময়
নিজেকে ঠকায়
ঠকায়নি কাউকে জীবনেও।
সে আমায় বলে
একমুঠো পান্তাভাতেই ঠোঁটে আমার হাসি
সফলতায় সুখ নেই, মানুষ তোমায় ভালোবাসি ;
পূর্ণতা আমার ভেতর বাহিরে।
খুঁজে নাও তুমিও তোমারি অন্তরে।

আরো পড়ুন