শ্যামনগরে ১০ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ভারতীয় গলদার রেণু উদ্ধার

শ্যামনগর থেকে, আব্দুল কাদের:- শ্যামনগর উপজেলার রমজাননগর ইউনিয়নের সোরা গ্রামের রাস্তার পাশ থেকে ৫টি বস্তায় মোড়ানো ৩০ পলিব্যাগ গলদা চিংড়ির রেণু উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে পরিত্যক্ত অবস্থায় বিজিবি উত্তর কৈখালী ক্যাম্পের সদস্যরা ১০ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ঐ চালান আটক করেছেন। এর আগের রাতে কৈখালী সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে চোরাইপথে অবৈধভাবে ভারত থেকে এসব রেণু বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়েছে বলে স্থানীয়দের ধারণা। এদিকে সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে নিয়ে আসা উক্ত চালান আটকের সময় রায়নগর নৌ-পুলিশ ও বিজিবি সদস্যের মধ্যে তুলকালাম কান্ড ঘটে। নৌ-পুলিশ ইনচার্জ তারক বিশ^াস পরিত্যক্ত বস্তাগুলোর ছবি নেওয়ার চেষ্টা করলে ঘটনার সুত্রপাত হয়। পরবর্তীতে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে জব্দকৃত চোরাচালনের পণ্য পরবর্তী আইনগত পদেক্ষপের জন্য বিজিবি সদস্যরা কৈখালী ক্যাম্পে নিয়ে যায়।আব্দুস সাত্তার ও আব্দুল কাদেরসহ স্থানীয় গ্রামবাসী জানায়, মঙ্গলবার সকালে সোরা এলাকায় রাস্তার পাশে কয়েকটি বস্তা পড়ে থাকতে দেখেন তারা। প্রায় একই সময়ে বিজিবি ও নৌ-পুলিশ সদস্যরা সেখানে উপস্থিত হওয়ার পর পরিত্যক্ত বস্তা হতে ৩০টি পলিব্যাগে থাকা গলদার রেণু উদ্ধার করা হয়। গ্রামবাসীর দাবি ১০ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের উক্ত চোরাচালানী পণ্য আটক নিয়ে নৌ-পুলিশ ও বিজিবির এফএস অনাকাক্সিক্ষতভাবে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে অপরাপর বিজিবি সদস্যদের হস্তক্ষেপে উর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশে পরিস্থিতি শান্ত হয়।রায়নগর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ তারক বিশ^াস জানান, রেণুভর্তি বস্তার ছবি উঠাতে গেলে তার ফোন ছিনিয়ে নেন ইসমাইল হোসেন। পরিচয়পত্র দেখানোর পরও তাকে এক পর্যায়ে ডাকাত বলে অপর বিজিবি সদস্যদের কাছে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। বিষয়টি তিনি উর্ধ্বতন বিজিবি কর্মকর্তাকে জানিয়েছেন বলেও তিনি নিশ্চিত করেন। বিজিবি এফএস হিসেবে দায়িত্ব পালনরত ইসমাইল হোসেন জানান, নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জের সাথে কোন দুর্ব্যবহার করা হয়নি। তার বিরুদ্ধে যা বলা হচ্ছে সব ভিত্তিহীন। এদিকে বিজিবি সুত্র নিশ্চিত করেছে মঙ্গলবার সোরা গ্রাম থেকে উদ্ধার হওয়া গলদার রেণুর বাজার মূল্য ১১ লাখ ২৫ হাজার টাকা। জব্দ তালিকা প্রস্তুতের পর তা কাষ্টমস বিভাগের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে।

আরো পড়ুন