শ্যামনগরে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে চলাচলের পথ কেটে নষ্ট করার অভিযোগ

শ্যামনগর প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার নূরনগর ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের মাদ্রাসা শিক্ষক মহব্বত আলী গাজী বিরুদ্ধে মানুষের চলাচলের পথ কেটে নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে।
(৫ জুলাই) মঙ্গলবার সকাল ১০: ৩০ মিনিট এর দিকে এক‌ই এলাকার মৃত সেকেন্দার আলী গাজীর পুত্র মহব্বত আলী ও মিজান গাজী সাহাদাত এর পুত্র জালাল গাজী নেতৃত্বে ৮ থেকে ১০ জন এর একটি সংঘবদ্ধ দল তাদের দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামিদ গাজী ও হারুন সহ তাদের ৪ পরিবারের ৭২ বছরের ভোগদখলে থাকা চলাচলের পথ কোদাল দারা কাটতে থাকে। সেই সময় বাঁধা দিলে অতরকৃত হামলা চালিয়ে দুইজন কে মারধোর করে। আহতরা হলেন হারুন গাজী স্ত্রী মরিয়ম খাতুন, আব্দুল হামিদ গাজী স্ত্রী সুফিয়া খাতুন কে মারধোর করে। তাদের কে স্থানীয়রা উদ্ধার করে দ্রুত শ্যামনগর হাসপাতালে ভর্তি করে। হামলা কারিরা চলাচলের পথ কেটে নষ্ট করে এবং চলাচলের অনুপযোগী করে দেয়। এঘটনায় বাংলাদেশ সরকারের সহযোগি হেল্প লাইন ৯৯৯ ফোন দিলে শ্যামনগর থানার কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা সুমারেস কুমার ও রেজাউল ইসলাম ঘটনাস্থলে পৌঁছালে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। আহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে আব্দুল হামিদ গাজী তথ্য নিশ্চিত করেন। আরো বলেন এঘটনায় শ্যামনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের প্রস্তুতি চলছে। মাদ্রাসা শিক্ষক মহব্বত আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি এখন ব্যাস্ত আছি ঘন্টা খানেক পর কথা বলবো বলে ফোন কেটে দেন।

আরো পড়ুন