শার্শার নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান তোতা কর্তৃক সাংবাদিককে প্রকাশ্যে হুমকি, থানায় অভিযোগ

শার্শা প্রতিনিধি :

সংবাদ প্রকাশের জেরে ১০নং শার্শা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কবির উদ্দিন তোতা ও তার পোষ্য সন্ত্রাসী বাহীনি কর্তৃক দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকার শার্শা প্রতিনিধি মোঃ ইকরামুল ইসলামকে প্রকাশ্যে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং শার্শা বাজারে উঠলে জুতা পেটা করার হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় শনিবার (১৪ই মে) সকালে ইকরামুল ইসলাম বাদী হয়ে শার্শা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে ও সাংবাদিক ইকরামুল ইসলামের মাধ্যমে জানা গেছে, ৭/৮ দিন আগে চেয়ারম্যান তোতার নামে চটকাপোতা গ্রামের একটি বিয়ে বাড়ি থেকে খাবার তুলে এনে তার সমার্থকদের ভিতরে বণ্টনের অভিযোগে বিভিন্ন অনলাইন এবং পত্রিকায় নিউজ প্রকাশিত হয়। তারই জের ধরে ১৩ই মে শুক্রবার সাংবাদিক ইকরামুল ইসলামকে লক্ষ্য করে তিনি সাংবাদিকদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। আমি গালিগালাজ করার কারণ জানতে চাইলে চেয়ারম্যান আমাকেও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ সহ শার্শা বাজারে উঠলে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান সহ তার সন্ত্রাসী বাহীনির সাজিদ সহ কয়েকজন আমকে মারতে তেড়ে আসে, তখন স্থানীয় জনগণ আমকে তাদের হাত থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। ইতিমধ্যে আমাকে হুমকির আংশিক ভিডিও সামাজিক যোগাযোগে মাধ্যম সহ বিভিন্ন ভাবে ভাইরাল হয়েছে।

চেয়ারম্যান তোতা ও তার সন্ত্রাসী বাহীনির অকথ্য ভাষার গালিগালাজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরলে সাংবাদিক সহ সাধারণ মানুষের মনে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। একজন জনপ্রতিনিধির এমন আচারনে সাধারণ জনগণ হতবাক হয়েছেন এবং সকলেই তার কঠোর শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

এর আগেও ক্ষমতার অপব্যবহার করে সালিশের সুযোগ নিয়ে চেয়ারম্যান তোতার সমার্থকেরা চেয়ারম্যানের নাম করে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা আদায়েরও অভিযোগ রয়েছে। এবিষয়েও কিছুদিন আগে নানা পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিলো। একারণেও সাংবাদিকদের উপর চেয়ারম্যানের একটা তীব্র ক্ষোভ পুষে রেখেছিলেন।

শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি এবং একটি অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরো পড়ুন