লালমোহনে বিরোধের জেরে লক্ষ টাকার গাছ কর্তনের অভিযোগ

লালমোহন প্রতিনিধি॥ ভোলার লালমোহন উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মোঃ বশির উল্যাহ নামের এক ব্যক্তির প্রায় লক্ষ টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে ওই এলাকার ফারুক হোসেন গংদের বিরুদ্ধে।
রবিবার সকাল ৭টার দিকে ওই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড রায়পুরা কান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী বশির উল্যাহ ওই গ্রামের মৃত আঃ রহমানের ছেলে এবং গাছ কর্তনে অভিযুক্ত মোঃ ফারুক হোসেন একই গ্রামের মৃত তোফায়েল আহমদ সরদারের ছেলে।
এ ঘটনায় লালমোহন থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী মোঃ বশির উল্যাহ।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পশ্চিম চরউমেদ মৌজার জেলএল নং-৩০, তৌজি নং-৩৪, খতিয়ান নং-৮৪৫ ও দাগ নং- ১৮৬৫/২৮৬৯ এ মোঃ বশির উল্যাহর ১০ শতাংশ জমিতে মেহগনি, সৃষ্টি ও কলাগাছ লাগিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু প্রতিপক্ষ ফারুক হোসেন গংরা ওই জমি জোরপূর্বক দখলের উদ্দেশ্যে গত রবিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাগানের বেশিরভাগ গাছ কেটে ফেলে। এসময় তাদের কে বাধা দিতে গেলে তার উপর হামলা করতে উদ্যত হয় দখলবাজরা। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে হুমকি দমকি দিয়ে চলে যায় তারা।
ভুক্তভোগী বশির উল্যাহ বলেন, ফারুক হোসেন ও আনিছ গংদের তান্ডবে এতে প্রায় লক্ষ টাকার গাছ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তারা স্থানীয় শালিসদের ফয়সালাকে সর্বদা অমান্য করে। এরপূর্বেও ফারুক হোসেন গংরা তার সৃজিত বাগানের গাছ কেটে ফেলেছিল বলেও অভিযোগ করেন বশির উল্যাহ।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মোঃ ফারুক হোসেন বলেন, আমার জমিতে তার গাছের ডালা এসে পরেছে, তাকে ডালা কাটতে বললেও সে কাটেনি, তাই আমরা কেটেছি। পরে বাধা দেয়ায় আর কাটিনি।
স্থানীয় ইউপি সদস্য তছির আহমেদ খান জানান, ফারুক হোসেন গংদের কাজই হলো অন্যের জমি জবরদখল করা।
লালমোহন থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাকসুদুর রহমান মুরাদ বলেন, গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো পড়ুন