লকডাউনে চা স্টল না খুললে খামু কী, কিস্তি দিমু ক্যামনে?

মোঃরিমন খান সরাইল(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি।করোনাভাইরাস কেড়ে নিয়েছে মানুষের স্বাভাবিক জীবন-জীবিকা। এই ভাইরাস মোকাবেলায় লকডাউনে অবস্থা ভাল নেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা কুট্টাপাড়া মোড়ে ফুটপাতে চা স্টল ব্যবসায়ী হুমায়ুন মিয়া। কোনো মতে ডাল-ভাত খেয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন তিনি।

যদিও বর্তমান অবস্থা বিবেচনা করে কিছু দিন বন্ধ রেখেছে দোকান। এখন চলছে না তার সংসার, তার পরে আবার রয়েছে কিস্তি, চা স্টল না চালালে খামু কি আর কিস্তি পরিশোধ করব কি ভাবে। ঘরে একবেলা খাবারের চাউল নাই। জমানো টাকা নাই। যাদের টাকা আছে তারা চাউল, ডাউল কিইন্যা ঘরে আছে। আমার নাই।’

হুমায়ূন বলেন,প্রতিদিনের চা স্টলের আয় দিয়ে আমার সংসার চলত,এখন বন্ধ থাকার কারণে বউ বাচ্চা নিয়ে বিপাকে, পাচ্ছি সরকারি ত্রাণ। চলব কি ভাবে আর কিস্তি দিব কি করে।

হুমায়ুন মিয়া নিজেকে আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিয়ে বলেন, আল্লাহ বাঁচাইলে বাঁচমু, নইলে বাঁচমু না। ভয় পাইয়্যা লাভ নাই। ঘরে আর বইস্যা থাইকলে আমার সংসারও চলবে না। চা স্টল দিয়ে প্রতিদিন আয় করি। প্রতি দিন খাই, ইনকাম না করলে খামু কি,।তার পড়ে রয়েছে কিস্তি।করোনার ভয়ে চা স্টল বন্ধ রেখেছি।এখন আর সংসার চলছে না তাই বাদ্দ হয়ে খুলতে হবে। চা স্টল না চালালে আয় হইব না। সংসারও চইলব না।

আরো পড়ুন