যুবদলের নতুন কমিটিতে আলোচনায় সভাপতি পদে সুলতান সালাউদ্দিন টুকু ও সাধারণ সম্পাদক পদে নূরুল ইসলাম নয়ন

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে যুগপৎ আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি। এ কারণে আগে ঘর গুছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটির হাইকমান্ড। মূল সংগঠন শক্তিশালী করার পাশাপাশি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দলের শূন্য পদগুলো পূরণের পাশাপাশি যেসব অঙ্গ সংগঠনের কমিটিগুলোর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে সেগুলোতে নতুন নেতৃত্ব আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিএনপির সংশ্লিষ্ট নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে। অঙ্গ সংগঠনগুলোতে সাবেক ছাত্রনেতাদের প্রাধান্য দেওয়া হবে।

বিএনপির অন্যতম অঙ্গসংগঠন যুবদল। সংগঠনটির মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে নতুন কমিটি করা হচ্ছে। শিগগিরই এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি দেওয়া হবে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। যুবদলে সাবেক ছাত্রদল নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হবে। ইতোমধ্যে ত্যাগী ও পরীক্ষিত সাবেক ছাত্র নেতাদের একটি তালিকাও বিএনপির হাইকমান্ডের কাছে পাঠানো হয়েছে।

২০১৭ সালের ১৭ জানুয়ারি সাইফুল আলম নীরবকে সভাপতি ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকুকে সাধারণ সম্পাদক করে পাঁচ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। মেয়াদ শেষ হওয়ার প্রায় এক মাস পর ১১৪ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

সূত্র জানায়, এবার আহ্বায়ক কমিটি না দিয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেওয়ার পক্ষে বিএনপির নীতিনির্ধারকরা। এবারের কমিটিতে সাবেক ছাত্রনেতাদের প্রধান্য দেওয়া হচ্ছে।

যুবদলের পদপ্রত্যাশীদের মধ্যে সভাপতি পদের জন্য আলোচনায় রয়েছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, সহ-সভাপতি আলী আকবর চুন্নু, মোনায়েম মুন্না, এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, জাকির হোসেন সিদ্দিকী, জাকির হোসেন মুন্না ও মাহবুবুল হাসান ভূঁইয়া পিংকু। তারা সবাই দীর্ঘদিন ধরে যুবদলের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন বর্তমান কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান। এর বাইরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন-সাবেক ছাত্রনেতা রাজিব আহসান, আকরামুল হাসান, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন ও ইসহাক সরকার প্রমুখ।

আরো পড়ুন