যশোরে লকডাউন ঘোষণার পরে বাজার আগুন!

যশোর প্রতিনিধি:- অভয়নগরে লকডাউন ঘোষণার পর থেকে বাজারে এখন হাত ঠেকানোই দায় হয়েছে মধ্যবিত্তের। করোনাভাইরাসের দাপটে স্বল্প সঞ্চয়ে বাজার করা দায় হয়ে পড়েছে।

নওয়াপাড়ায় দ্রব্যমূল্যের দাম আকাশচুম্বী হয়েছে। রবিবার দ্রব্যমূল্যের দাম বেড়ে নওয়াপাড়ায়, বেগুন ৪০ টাকা, পটল ৪৫ টাকা, টমেটো ১০ টাকা, পেঁয়াজ ৩০ টাকা, আলু ১৩ টাকা, রসূন ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

ওই একই পণ্য ১২ ঘন্টার ব্যবধানে কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বেশি দরে বিক্রি করছে সবজি বিক্রেতারাগণ । ১২ ঘন্টার ব্যবধানে দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্রেতা সাধারণের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কোথাও কোথাও ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মাঝে হাতাহাতির ঘটনা ও ঘটেছে।  বাজারে আসা কয়েকজন ক্ষোভের সাথে জানান, সকালে রসূন কিনেছি ৪০ টাকা কেজি দরে সেই একই রসূন ১২ ঘন্টার ব্যবধানে বিক্রি করা হচ্ছে ৫৫/৬০ টাকা কেজি দরে। প্রফেসার পাড়ার, মনিরুল বিভিন্ন কাঁচা ও মুদি মালামাল কিনতে এসে ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

 

তিনি বলেন, বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় লক ডাউন ঘোষনার সাথে সাথে দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি করেছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। এই সকল ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। বাজার ঘুরে দেখা গেছে যে, প্রতিটি পণ্যের দাম বৃদ্ধির সাথে সাথে বাজারে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়ও পরিলক্ষিত হয়েছে।

 

এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমিনুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানিয়েছেন, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির বিষয় আমি কোন অভিযোগ পায়নি। পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

 

আরো পড়ুন