যশোরে শার্শায় সরকারি ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন ৪ তলা ভবন উদ্বোধন

শার্শা প্রতিনিধি :বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ , সম্প্রসারণ ও সংস্কার সহ দেশ ব্যাপি আসবাবপত্র সরবরাহের কাজ করে যাচ্ছে। এরই আলোকে যশোর জেলার শার্শা উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন এবং পৌরসভাধীন প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেশ দ্রুত গতিতে চলছে ভবন নির্মানের কাজ। অত্র উপজেলায় ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নতুন ভবন উদ্বোধণ শেষে পাঠদানের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার(২৫ মে) সকাল ১০ টায় উদ্বোধণ করা হলো অত্র উপজেলাধীন নাভারণে অবস্থিত সরকারী ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কলেজে ৪ তলা নতুন ভবন উদ্বোধণ করা হয়,সেই সাথে অনুষ্ঠিত হয় নবীন বরণ অনুষ্ঠান। ইতিহাস ঐতিহ্যে সমন্বিত ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত বে-সরকারি এই কলেজটি তৎকালীন সময় উদ্বোধণ করেছিলেন আমাদের দেশের সেই সময়কার এবং বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী-শেখ হাসিনা। বর্তমানে এ কলেজটিতে মোট-১২০০ শিক্ষার্থী এবং ৬৮ জন শিক্ষক শিক্ষকতায় নিয়োজিত রয়েছেন।

৪ কোটি টাকা ব্যয় এ নির্মিত এ ভবনের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন আমন্ত্রিত প্রধান অতিথি ৮৫,যশোর-১ শার্শা আসনের এমপি শেখ আফিল উদ্দিন।

প্রধান অতিথি শেখ আফিল উদ্দিন ফিতা কেটে ৪ তলা বিশিষ্ঠ নতুন ভবনটি উদ্বোধণ করেন এবং সেখানে তিনি একটি গাছের চারা রোপণ করেন। ভবন উদ্বোধণ এবং নবীন বরণ অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন ঐ কলেজের অধ্যক্ষ জনাবা লায়লা আফরোজা বানু।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, “যারা এই মহিলা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা রয়েছেন, সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি, আরও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর,যিনি নারীর শিক্ষায়নে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে ১৯৯৭ ইং সনে কলেজটি’র শুভ সূচনা ঘটিয়ে ছিলেন,ফজিলাতুন্নেছা মহিলা ডিগ্রি কলেজ যদি মান সম্মত ভাবে গড়তে না পারি তাহলে আগামী দিনের শিক্ষার্থীদের কি জবাব দিবো, আগামী প্রজন্মকে যদি আমরা শিক্ষিত করতে না পারি এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা জানাতে না পারি তাহলে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন অসম্পূর্ণ থেকে যাবে, তাই আমাদের উচিত আগামী প্রজন্মের জন্য শিক্ষার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবণ ইতিহাস সম্পর্কে পরিচিতি লাভ করাতে হবে। তিনি শার্শায় উন্নয়নের প্রসংগ টেনে বলেন,আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসলে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়।

সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে শার্শায় উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সুসংগঠিত নের্তৃত্বের কারনে আজ অত্র উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের ১১টি চেয়ারম্যান এবং ১টি পৌরসভায় আওয়ামীলীগের মেয়র নির্বাচিত হয়েছে। তিনি শার্শায় যে উন্নয়ন করেছেন এগুলো তারই বহিঃপ্রকাশ”। অসুস্থতার কারণে বিশেষ অতিথি মোঃ সিরাজুল হক মঞ্জু অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত ছিলেন।

তবে অন্যান্য অতিথি বর্গের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- শার্শা উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক,যশোর জেলা পরিষদ সদস্য-অধ্যক্ষ ইব্রাহীম খলিল,১০ নং শার্শা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান-মোঃ কবির উদ্দিন আহম্মেদ তোতা, শার্শা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক-সোহরাব হোসেন,সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান-বাবলুর রহমান,শার্শা ইউনিয়ন আ.লীগ সভাপতি-মোরাদ হোসেন, এমপি’র একান্ত সহকারী-আসাদুজ্জামান আসাদ,মোখলেছুর রহমান,মোঃ শহিদুল ইসলাম, ছাত্রনেতা (সাবেক শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি) আব্দুর রহিম সরদার,ছাত্রনেতা-আল-আমিন রুবেল সহ স্থানীয় আ.লীগের বিভিন্ পদে থাকা নেতা-নেতৃবৃন্দ ও শিক্ষার্থীদের অভিভাবকবৃন্দ। এ ছাড়াও ঐ কলেজের সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

আরো পড়ুন