যশোরে মণিরামপুরে ক্লিনিক মালিকের জেল-জরিমানা

নিলয় ধর, যশোর প্রতিনিধি: হাসপাতাল হলেও চিকিৎসক এবং ডিপ্লোমা নার্স না থাকায় মণিরামপুরে প্রগতি ডিজিটাল ডি-ল্যাব ও রিজু হাসপাতালের মালিক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
একই সঙ্গে ডক্টরস ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও জিনিয়া প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরি নামে প্রতিষ্ঠান দুইটিকে ৫০ হাজার করে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার ৭ ডিসেম্বর বিকেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ইউএনও সৈয়দ জাকির হাসান অভিযান চালিয়ে এই দণ্ড দেয়।
অভিযানে যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন, মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. শুভ্রারানী দেবনাথ এবং ডা. অনুপ বসু অংশ নেয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের বেঞ্চ সহকারী সাইফুল ইসলাম বলেছেন, সরকারি অনুমোদন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি, নির্ভুল রিপোর্ট না দেওয়ায়, সরকার নির্ধারিত দামের সঙ্গে ভাউচারের মিল না থাকায় ভোক্তা অধিকার আইনে জিনিয়া প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরির মালিক মনিরুজ্জামান জনিকে ৫০ হাজার টাকা,ডক্টরস ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক জাকির হোসেনকে ৫০ হাজার টাকা এবং চিকিৎসক ও নার্স না থাকায় প্রগতি ডিজিটাল ডি-ল্যাব ও রিজু হাসপাতালের মালিক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহকে ৫০ হাজার টাকা; অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। জরিমানা দিতে না পারায় মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর কারাদণ্ড বহাল রাখা হয়।
সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন বলেছেন, নানা অনিয়মের অভিযোগে প্রতিষ্ঠান তিনটিতে অভিযান চালিয়ে দণ্ড দেওয়া সহ তাদের সকল কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে ল্যাব স্বাদ নামে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কার্যক্রম বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক (ইউএনও) সৈয়দ জাকির হাসান অভিযান ও দণ্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।।
আরো পড়ুন