যশোরে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আহত-৩০

নিলয় ধর, যশোর প্রতিনিধি:- যশোর সদর উপজেলার কোদালিয়ায় যাত্রীবাহী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। দুপুরে যশোর-মাগুরা মহাসড়কের কোদালিয়া বাজারে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
আহতদের মধ্যে বাসের চালক মাগুরার আড়পাড়া বাজারের বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম (৪৫), হেলপার একই জেলার শালিখার আটিরভিটে গ্রামের চান আলীর ছেলে ইয়ামিন হোসেন (২০), বাসের যাত্রী তালখড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমানের স্ত্রী ফরিদা বেগম (৬০), শ্রীপুর উপজেলার কাজলী গ্রামের টোকন মিয়ার স্ত্রী নিদ্রা খাতুন (২৮), তার মেয়ে অনিকা (৪), ছান্দড়া গ্রামের সৈয়দ আলীর ছেলে আব্দুল্লাহ (৩৫), যশোরের বাঘারপাড়ার প্রেমচারা গ্রামের কামরুল ইসলামের স্ত্রী আইরিন (২৬), তার মেয়ে জেসি (৭), একই উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মাস্টার রেজাউল ইসলামের স্ত্রী লতা বেগম (৪৬), দর্গাহপুর গ্রামের গোলাম মোর্তজার ছেলে শিহাব উদ্দীন (৩০) ও পাইকপাড়া গ্রামের মকছেদ আলীর ছেলে আজমুল হোসেনের (২৭) নাম-পরিচয় জানা গিয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, দুপুরে যশোর থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী একটি লোকাল বাস কোদালিয়া বাজারে পৌঁছালে এর চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। এই সময় বাসটি মহাসড়কের নিচে সবজি ক্ষেতে নেমে গিয়ে দ্রুতগতিতে শহিদুলের ঘরের দেয়ালে ধাক্কা লাগে। এতে তার দোতলা বাড়ির নিচতলার দেয়াল ভেঙে যায়। এই ঘটনায় হেলপারসহ বাসের অন্তত ৩০ জন যাত্রী আহত হয়।
আহতদের উদ্ধার করে লেবুতলা ও খাজুরা বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ ছাড়া গুরুতর আহত কয়েকজনকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাসের হেলপার ইয়ামিন হোসেন জানায়, কোদালিয়া বাজারের মোড় ঘুরতেই বাসের টায়ার খুলে যায়। যে কারণে বাসটি নিয়ন্ত্রণহীন হারিয়ে ফেলে।
এই দিকে খবর পেয়ে যশোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিভেন্স, বারোবাজার হাইওয়ে ও ফুলবাড়ী ক্যাম্প পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। বর্তমানে বাসটি পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। এই ঘটনায় বাসচালক শরিফুল ইসলাম আহত হলেও তিনি পলাতক রয়েছে।
আরো পড়ুন