যশোরে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু ৯ ও সনাক্ত ২৮০

স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোর:

করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ডেল্টা সীমান্তবর্তী যশোর জেলার উপর দিয়ে অপ্রতিরোধ্য গতিতে প্রবাহিত হচ্ছে। করোনার অধিক সংক্রমণশীল ও ক্ষতিকর প্রভাবের কারণে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন বেড়েই চলছে। করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির জন্য দায়ী জনগণের অসচেতনতা। গতবছর ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী সনাক্তের পর সরকারি বেসরকারিভাবে করোনা প্রতিরোধের উপায় ও করণীয় কাজ সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করার পরও সে সকল বিষয় বিশেষ করে মাস্ক ব্যবহার, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা , হাত ধোয়া ও জনসমাগম এড়িয়ে চলার বিষয় সমূহ আজও তাদের ব্যক্তিগত ও পারিবারিক জীবনে প্রয়োগের ক্ষেত্রে খুবই অনিহা।

আর তাই করোনার সংক্রমণ ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা গাণিতিক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় বাংলাদেশ সরকার পুনরায় সমগ্র দেশব্যাপী গতকাল থেকে এক সপ্তাহের জন্য কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেন। লকডাউন বাস্তবায়নে ও অযাচিত বাইরে ঘোরাঘুরি বন্ধ করতে সারাদেশের ন্যায় যশোরেও কাজ করছেন সম্মূখ সারীর করোনা যুদ্ধা,জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, বিজিবিসহ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অকুতোভয় কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

আজ ২ জুলাই-২০২১ রোজ শুক্রবার যশোর জেলা সিভিল সার্জন অফিসের করোনা ফোকাল পার্সন জানান, গত ২৪ ঘন্টায় যশোরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২ জন এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে ৭ জনসহ মোট ৯ জন মৃত্যু বরণ করেছেন যারা যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘন্টায় যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে ৭০৮ টি নমুনা পরীক্ষায় ২১৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে। এছাড়া ১৯০ জনের অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে ৫৯ জনের শরীরে এবং ৫ জনের জীন এ্যাক্সপার্ট পরীক্ষায় আরও৪ জনসহ মোট ২৮০ জন নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।এই নিয়ে যশোর জেলায় করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হলো ১২ হাজার ৭ শত ৮৭ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় যশোর সদরে সর্বোচ্চ ১৭৭ জন,ঝিকরগাছায় ৩০ জন, শার্শায় ২০ জন,কেশবপুরে ২০ জন, অভয়নগরে ১৯ জন, বাঘারপাড়ায় ৬ জন, চৌগাছায় ৫ জন এবং মনিরামপুরে ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

উল্লেখ্য করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জেলা উপজেলায় লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করা জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা জেলা সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছেন।তাদের এ কার্যক্রম প্রতিদিন অব্যাহত থাকবে বলে জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

আরো পড়ুন