যশোরে করোনাকালে বিবাহ বিচ্ছেদ দ্বিগুণ

নিলয় ধর, যশোর প্রতিনিধি: করোনা পরিস্থিতিতে যশোর পৌর এলাকায় বিবাহ বিচ্ছেদ আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে দ্বিগুণ। গত মার্চ মাস থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত ২১১টি বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে। এরই মধ্যে ৭৩জন পুরুষ ও ১৩৮ জন নারী বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটিয়েছেন। পৌরসভার প্রশাসনিক কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছে। ২০১৯ সালে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে শতাধিক।

পৌরকর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনার কারণে গৃহবন্দি মানুষের মধ্যে হতাশা আর্থিক অনাটন বাড়ে। এই সময় অনেকের পারিবারিক অশান্তিও বেড়ে যায়। যার ফলে বিবাহ বিচ্ছেদ বেড়েছে।

একটি বেসরকারি সংস্থার গবেষণামতে বিচ্ছেদের প্রধান কারণগুলো হচ্ছে, শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন, যৌতুকের জন্য চাপ, স্বামীর মাদকাসক্তি ও উগ্রমেজাজ, গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে বা পরোকীয়া করা। আর পুরুষদের দাবি করা অভিযোগগুলো হচ্ছে পরোকীয়া, ধর্মীয় রীতি-নীতি না মানা, বেপরোয়া আচরণ, অবাধ্য হওয়া এবং সংসারের কাজকর্মে মনোযোগ না দেয়া অন্যতম।

যশোর সরকারি এমএম কলেজের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হামিদুল হক বলেছেন, লকডাউনের কারণে মানুষ যখন অন্যের সাথে স্বাধীনভাবে মিশতে পারেননি, তখন বাড়িতে থাকা সদস্যদের কাছে বেশি ভালোবাসা আশা করে। চাওয়া পাওয়ার অমিল থাকলে বিচ্ছেদ বেড়ে যায়। তাছাড়া ঘর বন্দি থাকা কালে অনেকের পরোকীয়ার সম্পর্ক প্রকাশ পেয়েছে। সে সময় অনেক দিন ধরে সংসার করা কাছের মানুষকে অচেনা মনে হয়েছিল। এটা বিবাহ বিচ্ছেদের আরেকটি কারণ।

আরো পড়ুন