অভয়নগরে মুজিবরের ১৩তম স্ত্রী জেসমিনের সংবাদ সন্মেলন

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মুজিবরের হাত থেকে বাঁচতে চায়

অভয়নগর থেকে-

উপজেলার পায়রাহাটের কাদিরপাড়া গ্রামের মৃত মোঃ আনছার আলী বিশ্বাসের কন্যা জেসমিন নাহার অভয়নগর রিপোর্টাস ইউনিট ক্লাবে সংবাদ সন্মেলনে অভিযোগ করেন, তার প্রাক্তন স্বামী মুজিবর বিভিন্ন সময় তাকে খুন-গুম করার হুমকী দিচ্ছেন। তিনি অভিযোগে বলেন, তার প্রাক্তন স্বামী মুজিবরের বিভিন্ন স্থানে একাধিক স্ত্রী ছিল।

তাদেরকে যৌতুকের দাবীতে নির্যাতন করাতে চলে গেছে। সে নিত্য নতুন বিবাহ করে যৌতুকের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। বিবাহের পর জানতে পারেন তিনি মুজিবরের তেরোতম স্ত্রী। যৌতুকের দাবিতে তিনিও নির্যাতনের শিকার এবং মৃত্যুর হুমকীর মুখে। ক্রমাগত যৌতুকের দাবীতে তার উপর অত্যাচার শুরু করলে তিনি মুজিবরকে তালাক প্রদান করেন।

জেসমিন আরও বলেন, তার প্রথম স্বামী মোঃ ইসহাক বিশ্বাস বিদেশে যাওয়ার পর সুযোগ বুঝে মুজিবর গং তাকে অপহরণ করে জোর পূর্বক বিবাহ করে। আমার জীবন কলংকিত হলে প্রথম স্বামী স্ত্রী হিসাবে গ্রহন করতে অস্বীকার করলে বাধ্য হয়ে আমি কেশবপুর থানার চাদ্রা গ্রামের মৃত বাবুর আলীর পুত্র মুজিবর মোড়লের সাথে সংসার করতে থাকি। আমি একজন হতদরিদ্র। আমি রাজঘাট মাইলপোস্ট এলাকায় বাসা বাড়িতে ভাড়া থেকে এসএএফ লেদার মিলে দৈনিক হাজিরা শ্রমিক হিসাবে পূর্ব থেকেই দিনানিপাত করে আসছিলাম। যৌতুকের দাবীতে বিভিন্ন সময় আমার পিতৃকুলের জায়গা জমি ও গহনা বিক্রয় করে প্রায় সাত লক্ষ টাকা প্রদান করার পরও অত্যাচার অব্যাহত থাকলে মুজিবরকে কাবিননামা’র একলক্ষ টাকা ছাড়াই ২০২০ সালের ১৯ জুলাই তালাক প্রদান করি। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে মুজিবর গং অভয়নগর থানা, যশোর পুলিশ সুপারের কার্যালয়, যশোর পিবিআই, খুলনা ডিআইজি’র কার্যালয়সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে আমাকে মাদক কারবারী, দেহ ব্যবসায়ী, পাচারকারী উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ করে। এভাবে সকল দপ্তরে হাজির হয়ে নিজেকে নির্দোষ প্রমান করতে যেয়ে নাজেহাল, আর্থিকভাবে পঙ্গু ও চাকুরীটা হারাতে হয়েছে।

তারপরও লম্পট, প্রতারক মুজিবর আমাকে হেয় করতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে মিথ্যা তথ্য দিয়ে হয়রানি করছেন। জায়গা-জমি, গহনা, চাকুরী হারিয়ে আজ আমি মানবেতর জীবন যাপন করছি।

গণমাধ্যমের মাধ্যমে আমি বাংলাদেশ সরকারের নিকট আকুল প্রার্থনা জানাচ্ছি, আমাকে হয়রানীকারী মুজিবর গং’দের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিন নয়ত অব্যহত হয়রানি না করে আমাকে গুলি করে হত্যা করে এ জীবনের পূর্ণতা দান করুন।

আরো পড়ুন