মণিরামপুরে বাঁওড়ে নিখোঁজ হওয়া কলেজছাত্র উদ্ধার

যশোর প্রতিনিধিঃ 

দ্বিতীয় দিনে অভিযান চালিয়ে প্রায় ২৭ ঘণ্টা পর উদ্ধায় হয়েছে ঝাঁপা বাঁওড়ে বন্ধুদের সাথে নৌকা থেকে লাফিয়ে পড়ে নিখোঁজ হওয়া কলেজছাত্রের মরদেহ। শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) অভিযানের দ্বিতীয় দিনের ৪ ঘণ্টা পর নিখোঁজ স্থানে মরদেহটি ভেসে ওঠে।

এই বিষয়টি নিশ্চিত করেন মণিরামপুর ফায়ার সার্ভিসের আব্দুল আজিজ।পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন মণিরামপুর থানার (ওসি) রফিকুল ইসলাম।

যশোরের একটি কোচিং সেন্টার থেকে বৃহস্পতিবার ১৮ জন কলেজ শিক্ষার্থী রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাঁপা বাঁওড়ের পশ্চিমপাড়ে পিকনিকে আসে। তারপরে সবাই জেলাপ্রশাসক ভাসমান সেতুর তীর হতে নৌকায় চড়ে বাঁওড় ভ্রমণে যায়। সেই নৌকাটি রাজগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কাছে পৌঁছালে শোয়েব, তন্ময় ও রিফাত নৌকা থেকে পানিতে লাফিয়ে পড়েন। তাদের এই ৩ বন্ধুর মধ্যে তন্ময় ও রিফাত তীরে উঠে আসলেও নিখোঁজ হয় শোয়েব।

এর আগে গতদিনে বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে মণিরামপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা বাঁওড়ে উদ্ধারকাজে নামেন। এর সঙ্গে কাজ করেছেন স্থানীয়রা। কিন্তু তারা কোনো সন্ধান দিতে না পারায় খুলনার ডুবুরি দলকে খবর দেওয়া হয়। বিকেল ৩ টা বেজে ৩৫ মিনিটের দিকে ৩জন ডুবুরি বাঁওড়ে নামেন। তাদের সাথে কাজ করেছেন মণিরামপুর ইউনিটের ৮জন ফায়ারম্যান। রাত পৌনে ৭ টায় উদ্ধার কাজ শেষ করা হয়।

ফায়ার সার্ভিস উপ পরিচালক সরর্দার আব্দুল হান্নান ও খুলনা ডুবরী দলের লিডার আনোয়ারুল হক বলেন বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় আমরা বাঁওড়ে উদ্ধার কাজে নেমেছিলাম। ব্যর্থ হয়ে রাত পৌনে ৭ টায় উদ্ধার কাজ সমাপ্ত করি৷
শুক্রবার দ্বিতীয় দিনের মতো অভিযানে নেতৃত্ব দেন মণিরামপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লিডার আব্দুল আজিজ। তিনি জানিয়েছেন, দুপুর ১টার দিকে বাঁওড়ের রাজগঞ্জ কলেজ এলাকায় দুই হাত ওপরের দিকে শোয়েবের মরদেহ ভাসতে দেখেন তারা। প্যান্ট পরা শোয়েবের শরীরে জামা ছিল না। জামা খুলে এই স্থানেই শোয়েব বৃহস্পতিবার দুই বন্ধুর সাথে বাঁওড়ে লাফিয়ে পড়েছিলেন।

শোয়েব হাসান যশোর সরকারি সিটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র। তিনি যশোর শহরের পুরাতন কসবা বিমান বন্দর সড়কের শাহীন হোসেনের ছেলে। সে যশোর শহরের ৫নং ওর্য়াড তরুন লীগের যুগ্ম আহবায়ক।
এদিকে, নৌকা থেকে লাফিয়ে পড়া তিনবন্ধুর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে দেখাগেছে বন্ধুদের সাথে ফুর্তি করতে করতে জামা খোলেন শোয়েব, তন্ময় ও রিফাত। পরে হাসতে হাসতে তারা একে একে পানিতে ঝাঁপ দেন।

আরো পড়ুন