ভোলায় বহিরাগতদের হামলায় স্কুল ছাত্র আহত,বিচারের দাবিতে সড়ক অবরোধ

বিশেষ প্রতিনিধি

ভোলা সদর উপজেলার ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসে বহিরাগত বখাটদের হামলায় গুরুত্বর আহত হয়েছেন ৯ম শ্রেণীর আলামিন নামের এক শিক্ষার্থী।

বর্তমানে আহত আলামিন কে মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে ভোলা সদর হাসপাতালে পরে বরিশাল সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাকছুদুর রহমান।

সোমবার সকালে ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে এই ঘটনা ঘটে। বহিরাগত বখাটেরা হামলা করে পালিয়ে গেলে ঐ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এসে ঘন্টাব্যাপী ভোলা লক্ষ্মীপুর সড়ক অবরোধ করে রাখেন পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানান, ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর তানজিলা নামের এক ছাত্রী কে পছন্দ করেন ইলিশা ৭নং ওয়ার্ডের আলমগীর ফরাজীর ছেলে রাজিব।
রাজিব সোমবার সকালে তার বন্ধু ইমনসহ ৭/৮ জনে তিনটি মোটরসাইকেলে স্কুলের সামনে আসলে আলামিন জানতে চায় আপনারা কারা?  এই নিয়ে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে রাজিবের নেতৃত্বে তার বন্ধুরা আলামিন কে পিটিয়ে আহত করে তারা পালিয়ে যায়।

পরে আহত আলামিন কে এ্যাম্বুলেন্সে দ্রুত ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করলে দুইপাশে যানজটের সৃষ্টি হলে ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ শ্রী রতন শীল এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাকছুদুর রহমান, ইকবাল হোসেনসহ সবাই শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে ক্লাসে নিয়ে যান।

তবে ঈমনের বাবা কাচিয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আবদুল হাই সবুজ বলেন আমার ছেলে সেখানে ছিলো না আমি খবর নিয়েছি তার পরেও তদন্তসাপেক্ষে আমার ছেলে দোষী হলে উপযুক্ত বিচার করবো এবং আহত ছাত্রের চিকিৎসার খোজ নিতে আমি হাসপাতালে গিয়েছি।

ইলিশা ইউসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলাম বলেন, আমি বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে জানিয়েছি তিনি বলেছেন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।

ইলিশা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শ্রী রতন শীল জানান, আমি খবর পেয়ে এ এস আই সুজন, আবুল কালামসহ সর্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছি এবং লিখিত অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।

আরো পড়ুন