ভোলার ঘটনায় সেই বিপ্লবসহ তিনজনকে

কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

বিশেষ প্রতিনিধি: ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও মহানবীকে অবমাননা করা ও ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচারের অভিযোগে বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য শুভ (২৫) সহ তিনজনকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। (২১ অক্টোবর) সোমবার ভোলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফরিদ আলমের রায়ে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর এই আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো অপর দু’জন হলেন,বোরহানউদ্দিন কাচিয়া ইউনিয়নের মোঃ ইমন (১৮) ও রাফসান ইসলাম শরীফ ওরফে শাকিল শরীফ (১৮)। এর মধ্যে শাকিলকে রোববার পটুয়াখালীর গলচিপা এবং ইমনকে কাচিয়া থেকে গ্রেফতারের কথা জানিয়েছেন পুলিশ। অন্য ৭-৮ জন অজ্ঞাতনামা আসামির সঙ্গে ‘পরস্পর যোগসাজশে’ ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি এবং ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচারণার অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

রোববার বোরহানউদ্দিন থানায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোঃ দেলোয়ার হোসেন তাদের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে এ মামলাটি দায়ের করেন।

বোরহানউদ্দিন থানার ওসি মু.এনামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, রোববার হতাহতের ঘটনায় সমবেদনা প্রকাশ করে বিজ্ঞপ্তিতে পুলিশ জানায়, ‘ফেসবুক আইডি হ্যাকের প্রেক্ষিতে বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য শুভ নামে এক যুবক গত শুক্রবার রাতে বোরহান উদ্দিন থানায় জিডি করেন। জিডির সময় থানায় অবস্থানকালেই বিপ্লবের নম্বরে আসা কলে চাঁদা দাবি করা হয়। প্রযুক্তির সাহায্যে সেদিন রাতেই বিপ্লবের ফেসবুক হ্যাককারী ও তার মোবাইলে কলকারী শাকিল শরীফ ও ইমন নামে দুই মুসলিম যুবককে যথাক্রমে পটুয়াখালী ও বোরহানউদ্দিন থেকে আটক করা হয়।

প্রবা/সোয়েব চৌধুরী

আরো পড়ুন