বোরহানউদ্দিনে চাঁদার দাবিতে কুপিয়ে জখম ‘ হুমকির মুখে ১ হাজার জেলে পরিবার

বোরহানউদ্দিন (ভোলা) প্রতিনিধি

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড়মানিকা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে চাঁদার দাবীতে জেবল হকের ছেলে দুলাল (৩৫) কে দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে। দুলালের স্ত্রী মমতাজ ও মেয়ে ৩ বছরের শিশু রাফিয়া গুরুতর আহত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে দুলালের বসত ঘরে ঢুকে চাঁদার দাবীতে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে বসতঘর ভাংচুর ঘরে থাকা বিভিন্ন মালা-মাল লুট ও নগদ ৪০ হাজার টাকা নিয়ে যায় একই এলাকার নিরব মাতাব্বরের ছেলে সেহেল মোল্লা, এমরান , হিরন, খুকু, সেহেল মোল্লার স্ত্রী চায়না ও নিরব মাতাব্বরের স্ত্রী খায়রুন বেগম ও পক্ষিয়া ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের হোসেন মাতাব্বরের ছেলে ইয়াবা বিক্রেতা বাবলু সহ আরো ৬ জন। এসময় আহতদেরকে হত্যার হুমকি দেয় হামলাকারীরা। স্থানীয় লোক তাদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এই ঘটায় হুমকির মুখে রয়েছে জেলে পল্লির প্রায় ১ হাজার পরিবার। স্থানীয়রা জানায়, ওই ওয়ার্ডে নদী ভাংগন এলাকার প্রায় ১ হাজার সাধারন জেলে পরিবার স্থানীয় জমির মালিকদের কাছ থেকে মৌখিক ভাবে ২০১৬ সালে জমি ক্রয়করে ঘর উত্তোলন করে বসবাস করেন। নদীর পারে বর্তমান ব্লোক নির্মানের কাজ প্রায় শেষের দিকে। তাই নদীর পারের জমি স্থায়ী হওয়ায় ওই জমির মালিকরা বর্তমানে বসবাস রত প্রায় ১ হাজার জেলে পরিবারের কাছ থেকে বিভিন্ন ভাবে চাঁদাদাবী করেন আসছেন।

তারই ধরাবাহিকতায় জখম দুলালের পরিবারের কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করেন হামলা কারীরা। আহত দুলাল টাকা দিতে অস্বিকার করলে তাকে তার ঘরে ঢুকে কুপিয়ে জখম করে। এসময় তার স্ত্রী ছারাতে গেলে তাকেও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে এবং তার সাথে থাকা ৩ বছরের শিশুও আহত হয়। এ ঘটনার পর চাঁদার হুমকির মুখে রয়েছে মেঘনার পারে থাকা

২০১৬সালে মৌখিক ভাবে জমি ক্রয়করা প্রায় ১ হাজার জেলে পারিবার। এব্যপারে হামলাকারীদের কাছে চানতে চাইলে চায়না ও ইয়াবা বিক্রেতা বাবলু বলেন আমরা ঘর দখল করতে এসেছি, এখানে থাকতে হলে আমাদের সাথে ফয়সালা করতে হবে, তা না হলে আমরা তাদেরকে এখানে থাকতে দিমুনা, তারা নদী ভাংগা জাইল্যা। অন্যদিকে ইয়াবা বিক্রেতা বাবলুর বিরুদ্ধে বাংলাবাজার লঞ্চ ঘাট এলাকায় ইয়াবা বিক্র করার অভিযোগ রয়েছে স্থানীয়দের। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানাযায়।

আরো পড়ুন