বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোটে: মণিরামপুর উপজেলার আহবায়ক হলেন,বাবু অভিজিৎ দত্ত  

যশোর প্রতিনিধি :-সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রতিবাদে যশোর মণিরামপুরে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোটের ৩১ সদস্য আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। যেকোনো ঘটনায় হামলার শিকার হয় হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। একটি দেশে সংখ্যালঘুদের ওপর অব্যাহত হামলা মেনে নেওয়া যায় না। 

সারদেশেই অনেক বড় বড় সন্ত্রাসী হিন্দুদের ওপর নানাভাবে নির্যাতন চালাচ্ছে। কাজেই তাদেরকেও আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায়, সংখ্যালঘু বলে হিন্দুরাও ঘরে বসে মুখ বুঝে এসব অন্যায় মেনে নিবে না। তাদের এই বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোট সারা দেশে হিন্দু নির্যাতন আটকাতে আন্দোলনে নেমে পড়তে তারা প্রস্তুত। 

মণিরামপুর উপজেলায় আহবায়ক কমিটিতে আছেন,
আহবায়ক- অভিজিৎ দত্ত, যুগ্ম আহবায়ক- তারক দেবনাথ,, অমিত পাল, অশোক মন্ডল, গৌরঙ্গ দে, দেবাশিষ মল্লিক, অমিত দাস, সজল মজুমদার, তুফান বিশ্বাস, রিপন ঘোষ,উৎস সরকার, অমিত ঘোষ রকি, সদস্য – শ্যামল হাজরা, দীপঙ্কর দাস, সুরঞ্জিত শর্মা বাপ্পি, শ্যামল কুমার দাস, কৃষ্ণ মন্ডল, তপু সরকার প্রমুখ।।

নব-নির্বাচিত কমিটির আহবায়ক অভিজিৎ দত্ত বলেন,আমি সর্ব প্রথমে ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোট কেন্দ্রীয় কমিটির সকল নেতৃবৃন্দকে।তিনি বলেন মনিরামপুর উপজেলায় সকল ইউনিয়নে কমিটি দিয়ে হিন্দু যুব মহাজোটকে গতিশীল করার জন্য আমি চেষ্টা করব।

যুগ্ন-আহবায়ক তারক দেবনাথ বলেন,বাংলাদেশ হিন্দু যুব মহাজোটের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশ মোতাবেক মনিরামপুর উপজেলায় হিন্দু যুব মহাজোট ৭ দফা দাবি আদায়ে অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে।তিনি আরও বলেন,হিন্দুত্ব রক্ষার জন্য সংগ্রাম করবে মনিরামপুর উপজেলার জাতীয় হিন্দু যুব মহাজোট।অবশেষে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির হিন্দু যুব মহাজোটের সকল নেতৃবৃন্দকে গৈরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছে মনিরামপুর উপজেলার আহবায়ক কমিটির সকল নেতৃবৃন্দ।

 

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট হল বাংলাদেশের একটি হিন্দু গন মানুষের সামাজিক সংগঠন। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৬ সালে বাংলাদেশ হিন্দু মহাজোট নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিজিএইচএম এর মূল লক্ষ্য হ’ল হিন্দু সমাজকে সুসংহত করা এবং হিন্দু ধর্ম রক্ষা করার – সেবা করা। এই দলটির বর্তমান সভাপতি হচ্ছেন প্রদীপ কান্তি দে,  সাধারণ সম্পাদক- রাজেশ নাহা,  সহ সাংগঠনিক সম্পাদক – সুকেন নাহা।। 

 

 

 

আরো পড়ুন