প্রথমবারের মতো যশোরে ২টি স্কুলে ফি ছাড়াই ভর্তি কার্যক্রম 

যশোর প্রতিনিধি:- যশোরে ২টি সরকারি হাইস্কুলে ফি ছাড়াই ভর্তি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে রবিবার থেকে। তৃতীয় ও ষষ্ঠ শ্রেণিতে এই ভর্তি কার্যক্রম চলবে। প্রথম বারের মতো কোনো রকম ফি না নিয়েই সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও জিলা স্কুলে এই দুই শ্রেণিতে ভর্তি করা হবে। তবে, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর যদি ফি গ্রহণের নির্দেশনা দেয় তাহলে তখন স্কুল কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় অর্থ গ্রহণ করবে।

 

এই বছর সরকারি হাইস্কুলে ৩য় ও ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথমবারের মতো লটারি অনুষ্ঠিত হয়। গত ১১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত লটারিতে যশোরের দুইটি স্কুলে চারশত’ ৮০ জন শিক্ষার্থীর ভাগ্যের সিঁকে ছিড়ে। লটারি সম্পন্নের পর ১৩ ও ১৪ জানুয়ারি বিজয়ীদের মধ্যে ভর্তি ফরম বিতরণ করা হয়।

 

আগামীকাল রবিবার(১৭ জানুয়ারি)সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ভর্তি ফরম গ্রহণ করা হবে। একইসাথে সম্পন্ন করা হবে ভর্তি সংক্রান্ত কার্যক্রম। ভর্তির সময় ছাড়পত্রের মূল কপি, ছাত্রীর জন্ম সনদের ফটো কপি, ছাত্রীর দু’ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটো কপি এবং কোটায় ভর্তির জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সত্যায়িত ফটো কপি জমা দিতে হবে।

 

অন্যান্য বছর সরকারি হাইস্কুলে ভর্তির সময় অভিভাবকদের মধ্যে ব্যাপকভাবে ‘যুদ্ধ’ শুরু হতো। চলতো তদবির প্রতিযোগিতা। কিন্তু এইবার এসবের তেমন কিছুই হয়নি। করোনার কারণে এবারই প্রথম পরীক্ষা পদ্ধতি বাদ দিয়ে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হচ্ছে। ফলে, অভিভাবকরা খানিকটা ভাগ্যের উপর ছেড়ে দেন। বেশিরভাগ অভিভাবক অনেকটা অনিশ্চয়তার মধ্যে থেকে অনলাইনে আবেদন করেন। তবে, লটারি হওয়ায় এবার আবেদনের সংখ্যা বৃদ্ধি পায় বলে স্কুল সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

 

করোনারা কারণে ভর্তি সংক্রান্ত বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেন। সর্বশেষ, এই বছর ৩য় ও ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির বিষয়ে এখনো পর্যন্ত ফি নির্ধারণ করতে পারেনি অধিদপ্তর। এই কারণে কোনো রকম ফি গ্রহণ ছাড়াই যশোরের দু’টি স্কুলে আগামীকাল থেকে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। ফলে, অভিভাবকদের আপাতত অর্থের চাপ কিছুটা হলেও কমছে। যদিও যেকোনো সময় এই ভর্তি ফি জমা দেয়া লাগতে পারে।

 

এই বিষয়ে যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আহসান হাবিব পারভেজ বলেন, অধিদপ্তর থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো ধরনের নির্দেশনা না আসায় ভর্তি ফি বাদেই শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

 

যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লায়লা শিরীন সুলতানা বলেছেন, করোনার কারণে এই প্রথম আপাতত কোনো রকম ফি গ্রহণ ছাড়াই শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু করা হচ্ছে। তবে, সবকিছু হবে অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী। যখন যেভাবে নির্দেশনা আসবে তখন সেইভাবে কাজ করা হবে।

আরো পড়ুন