পাওনা টাকা চাওয়ায় সুবর্ণচরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৫

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ নোয়াখালী সুবর্ণচরে পাওনা টাকা চাওয়ায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী হামলায় আহত হয়েছেন ৫ জন, এর মধ্যে নবাব ছোইয়াল এর পুত্র মো: জহির এর অবস্থা আশংকাজনক, তিনি ২৫০ শয্যা বিশিষ্ঠ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বাকিরা স্থানীয় সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন, বর্তমানে হামলাকারিরা তাদেরকে হুমকি ধমকি দিচ্ছে বলেও জানাযায়।
ঘটনাটি ঘটে গতকাল (বৃহস্পতিবার) ১৫এপ্রিল রাত ৮টায় সুবর্ণচর উপজেলার ৫নং চরজুবলী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড চরমহি উদ্দিন গ্রামে, আহত মাইন উদ্দিনের পুত্র সোহেল (৩১) বলেন, একই গ্রামের আক্তার মাঝির পুত্র জয়নাল(৪০) আবেদিন আমাকে প্রলোভন দেখিয়ে ফেনীর সোনাগাজীতে তরমুজ চাষের জন্য ১ বছরের জন্য বন্ধক নেয় আমরা মোট ৪ জনের একটি গ্রুফ করে আমরা সবাই সেখানে চাষাবাদ শুরু করি কিন্তু জয়নাল আমাকে ফসল এবং জমির পরিমাপে ঠকাতে থাকে। আমি টাকার হিসেব চাইলে বার বার তিনি আমাকে সঠিক হিসেব দিতে ব্যার্থ হন এক পর্যায়ে আমি সোনাগাজীর স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের কাছে শালিস বসায় শালিশে সে দোষী হওয়ায় আমার ক্ষতি বাবদ ৭ হাজার জয়নাল দিবে মর্মে চুড়ান্ত হয়।
তরমুজ বিক্রি শেষ হলে আমরা সবাই সুবর্ণচর চলে আসি, গতকাল ১৫ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) ইফতার শেষ করে রাত ৮টায় চর মহিউদ্দিন গ্রামের স্থানীয় বেচুর দোকানে জয়নালকে দেখতে পেয়ে তার কাছে পাওনা টাকা চাইলে সে উত্তেজিত হয়ে আমাকে টাকা দিবেনা মর্মে হুমকি ধমকি দেয় এবং অশ্লিল ভাষায় গাল মন্ধ করে এতে আমি প্রতিবাদ করলে জয়নাল এবং তার পুত্র রাকিব(২১)প¦ার্শবর্তি গ্রামের আবুল কালামের পুত্র সাহাব উদ্দিন (২৫), ফকির(৩২), জয়নালের পুত্র মিলন, আব্দুল খালেকর পুত্র হাশেম(৩৫) সহ অজ্ঞাত ৭/৮ জনের সন্ত্রাসী দল আমাকে লাঠিসোটা দিয়ে পেটাতে থাকে আমাকে মারধরের সংবাদ পেয়ে আমাকে উদ্ধার করতে আমার ভাই আব্দুল মান্নান, আব্দুর রহিম, শরীফুল ইসলাম ও আমার জেঠাতো ভাই ভাই জহির দৌড়ে এলে তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে। বর্তমানে জহিরের অবস্থা আশংকাজনক।
এব্যাপারে অভিযুক্ত জয়নালের কাছে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন কথা বলবেননা বলে ফোনের সংযোগ কেটে দেন।
এলাকাবাসী বলেন,জয়নাল খারাপ প্রকৃতির মানুষ,বোয়ালখালিসহ সুবর্ণচরের কয়েক জায়গায় চুরির দায়ে একাধিবার মার খেয়েছে, মানুষের ভূমি দখল, প্রভাব দেখিয়ে অন্যর সম্পদ দখলসহ অনেক অন্যায়ের সাথে জড়িত ।
এ বিষয়ে জানতে চরজব্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউল হক তরিক খন্দকাররের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “এ বিষয়ে কেই অভিযোগ করেনি, অভিযোগ পেলে আইননানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে ।
মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি ০১৮২০-৫২ ৪৬ ৫৫, তারিখ ১৬-০৪-২১

আরো পড়ুন