নোয়াখালীতে ভাইয়ের বিরুদ্ধে বোনের সংবাদ সম্মেলন

মো ইমাম উদ্দিন সুমন,নোয়াখালী

নোয়াখালীতে আপন ভাইয়ের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সালমা জাহান কাজল নামে একজন নারী। গত ১১ জুন স্হানীয় একটি মিডিয়া হাউসে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এই অভিযোগ করেন। সালমা জাহান জানান,তিনি মাইজদী হাউজিং এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করেন এবং নোয়াখালী সুপার মার্কেটে ‘ওমেন্স প্রায়োরিটি এ্যান্ড ইয়োগা সেন্টার’ নামে মহিলাদের জিম পরিচালনা করেন।কিন্তু আপন ভাইয়ের চক্রান্তের শিকার হয়ে তিনি আজ নিঃস্ব হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।ফ্ল্যাট এবং জমি দেয়ার কথা বলে তার এবং তার স্বামীর সারাজীবনের সঞ্চয় প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় তার বড় ভাই মোঃ মামুনুর রশিদ মামুন এবং তার স্ত্রী দিনা।

তিনি জানান,তার ভাই এবং ভাবি ঢাকা এলিফ্যান্ট রোডে বসবাস করেন।উক্ত এলাকায় তারা মাদকসেবি এবং মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে সুপরিচিত।তার ভাই নিজেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার হিসেবে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি কোটি টাকা।তার স্ত্রীও মাদক ব্যবসার পাশাপাশি গ্রামের নিরীহ অসহায় মেয়েদেরকে ঢাকায় চাকুরী দেয়ার কথা বলে জিম্মি করে দেহ ব্যবসায় বাধ্য করেন।ঢাকা খিলক্ষেত থানায় ইতিমধ্যে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা চলমান রয়েছে।

কিছুদিন ভাইয়ের বাসায় থাকার সুবাদে তিনি যখন ভাইয়ের মাদক ব্যবসার কথা জেনে ফেলেন এবং প্রতিবাদ করেন তখন তারা তাকে টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান এবং কাউকে জানালে তাকে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেন।তখন তিনি পালিয়ে নোয়াখালী চলে আসেন কিন্তু এখানেও তাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়।নিরুপায় হয়ে তিনি সুধারাম মডেল থানায় সাধারন ডায়েরি করেন এবং আদালতে মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত ‘পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন'(পিবিআই)কে তদন্তের দায়িত্ব দেয়।কিন্তু আসামী মামুন টাকা দিয়ে তদন্ত রিপোর্ট তার পক্ষে নেয়ার হুমকি দেয় এবং তাকে প্রতিনিয়ত প্রাননাশের হুমকি দিতে থাকে।উপায়ন্তর না দেখে তিনি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন

আরো পড়ুন