নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সেই কাউন্সিলর ও যুবদল নেতা খোরশেদ করোনায় আক্রান্ত

নিউজ ডেস্ক

দেশে- বিদেশে বীর উপাধি পাওয়া নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আলোচিত কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

তিনি স্বজনদের ফেলে যাওয়া করোনাভাইরাসে মৃত ব্যক্তিদের লাশ দাফন ও সৎকার করে দেশ-বিদেশে আলোচিত হয়েছেন। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে যে কোনো মানুষের সাহায্যে এগিয়ে যান।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া অনেক রোগীকে হাসপাতালে ফেলেই পালিয়ে গেছেন স্বজনরা। তাদেরকে তিনি তার দল নিয়ে পরম মমতায় দাফন করেছেন। স্ত্রীর পর এবার তিনিও প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

শনিবার কাউন্সিলর খোরশেদের করোনায় নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে পজিটিভ আসে। কাউন্সিলর খোরশেদ তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক আইডিতে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট নিয়ে স্ট্যাটাস দেন।

কাউন্সিলর খোরশেদ জানান, শনিবার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পেয়েছি। এতে আমার দেহে করোনাভাইরাসে উপস্থিতি পাওয়া গেছে। বর্তমানে নিজ বাড়িতেই আইসোলেশনে আছি। বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নেবো। সবাই আমার সুস্থতার জন্য দোয়া করবেন।

তিনি বলেন, আমি আক্রান্ত হলেও আমার সব কার্যক্রম চলবে। আমার টিম সব সময় সক্রিয় থাকবে, আমার ফোনও চালু থাকবে। আমি যতোদিন বেঁচে আছি করোনাযুদ্ধ থেকে এক বিন্দুও পিছ পা হবো না ইনশাআল্লাহ।

সুস্থ হয়ে আমি যেন আগের মতো মানুষের সেবা করতে পারি, আল্লাহ যেন সেই তৌফিক দান করেন। আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন, যেন আল্লাহর আমাকে সুস্থতা দান করেন।

আগামী ৪ দিন আমি সশরীরে উপস্থিত না থাকলেও আমাদের দাফন কমিটির কাজ, টেলিমেডিসিন, প্লাজমা সংগ্রহ, সবজি বিতরণ, মধ্যবিত্তের জন্য ভর্তূকি মূল্যে খাবার বিক্রি ও ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

তিনি শুক্রবার ২৯ মে পর্যন্ত ৬১টি মরদেহ দাফন ও সৎকার করেছেন বলে জানান।

 

আরো পড়ুন