দুবাই আবীর ভেজিটেবল মার্কেটে কে বি এন রেস্টুরেন্টের উদ্ভোধন।

দুবাইয়ের বিখ্যাত আবির ভেজিটেবিল মার্কেটে দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে উদ্বোধন হলো অভিজাত  বাঙালি রেস্তোরাঁ কে বি এন রেস্টুরেন্ট।আবীর ভেজিটেবল মার্কেটের ত্রিশ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রাণের দাবি ছিল এই অঞ্চলে একটি সুস্বাদু  খাবারের বাংলাদেশী রেস্টুরেন্ট স্থাপনের। সেই দাবি পূরণের লক্ষ্যে অভিজাত ও বাংলাদেশী রেস্তোরাঁ  করার পরিকল্পনা করেন আবীর ভেজিটেবল মার্কেটের পরিচিত মুখ ব্যাবসায়িক অ্যাসোসিয়েশনের জেনারেল সেক্রেটারি  আলহাজ্ব ইয়াকুব সৈনিক ।

গত শুক্রবার দুটি পর্বে বিভক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজনের মধ্য দিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সে দীর্ঘ দিনের প্রতিক্ষার অবসান ঘটানো হয় । অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে কোরআন খতম,  দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয় । দ্বিতীয় পর্বে বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ,  মিশন কর্মকর্তা ও গণমাধ্যম কর্মীদের নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল ।

প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার আলহাজ্ব ইয়াকুব সৈনিকের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  আমিরাতে বাংলাদেশে নিযুক্ত কমার্শিয়াল কাউন্সিলর মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কনস্যুলেটের  ফাস্ট সেক্রেটারি ফকির মনোয়ার হোসেন। বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আইয়ুব আলী বাবুল। বাংলাদেশ সমিতি দুবাইয়ের সদস্য সচিব  নাছের রেজা খান। বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতা মাজহারুল্লা মিয়া, আবির বাংলাদেশ বিজনেস এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট  জুলফিকার ওসমান। আবিব বাংলাদেশ বিজনেস এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা কাজী ওসমান, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল দুবাইয়ের এক্সিকিউটিভ সদস্য আবুল কালাম,  জাকির হোসেন,  শারজা বাংলায় সমিতির সহ সভাপতি শাহাদাত হোসেন, কমিউনিটি নেতা মোহাম্মদ নুরুল আলম, আবির বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ হারুনুর রশিদ।

কমিউনিটি নেতা কাজী মোহাম্মদ আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আজমান বিজনেস  ফোরামের সভাপতি মোহাম্মদ কামাল হোসাইন, ব্যবসায়ী মোঃ ইব্রাহিম, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শারজা বাংলাদেশ সমিতির কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম রুপু, ইমাম হোসেন পারভেজ, আবুল বাশার,  ইঞ্জিনিয়ার মাহে আলম চৌধুরী, মোহাম্মদ এনাম হোসেন। মোহাম্মদ তারেকুল ইসলাম চৌধুরী প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন করোনার সংকট কমে আসার পর হাজার হাজার প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মসংস্থানের সঙ্কট মেটানোর লক্ষ্যে ছোট বড় বিনিয়োগে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। এরই মধ্যে অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশী গোসারি শপ ও রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় ব্যাপক বিনিয়োগ করেছেন। যা বাংলাদেশী প্রবাসীদের জন্য একটি ইতিবাচক দিক।

প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার আলহাজ্ব ইয়াকুব সৈনিক বলেন আমার চেইন রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় এটা হচ্ছে তৃতীয় প্রতিষ্ঠান।আরো বেশ কয়েকটি অভিজাত রেস্টুরেন্ট ওপেনিং করার জন্য কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি তার এই অগ্রযাত্রায় সকল প্রবাসী বাংলাদেশীদের দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সাথী হওয়ার আহ্বান জানান।

আরো পড়ুন