দুবাইয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে জাতীয় শোক দিবস পালিত।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে দুবাইয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের উদ্যোগে  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহদাত বার্ষিকি ও জাতীয় শোখ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করে। দিবসটি উপলক্ষে কনস্যুলেটে জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্থাবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। সভার শুরুতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন যথাক্রমে শ্রম কাউন্সিলর ফাতেমা জাহান, কমার্শিয়াল কাউন্সিলর কামরুল ইসলাম, প্রথম সচিব পার্সপোর্ট নুরে মাহাবুবা জয়া ও প্রথম সচিব শ্রম ফকির মনোয়ার হোসেন। এর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার পরিবারের অন্যান্ন শহীদ সদস্য ও শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরাবতা পালন করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবনের উপর একটি প্রমান্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে দুতালয় প্রধান প্রবাস লামারাং এর উপস্থাপনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কনস্যাল জেনালের ইকবাল হোসাইন খান বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের বিভিন্ন দিক এবং স্বাধীন বাংলাদেশ সৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব ও অসামান্য অবদানের ওপর আলোকপাত করেন। তিনি উল্লেখ করেন, বঙ্গবন্ধুর ত্যাগ ও আদর্শ বাঙালি জাতির চিরপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে। অনুষ্টানে বক্তব্য রাখেন ডেপুটি কনস্যাল জেনারেল শাহেদুল ইসলাম, বিমান বাংলাদেশ দুবাইয়ের ম্যানেজার দিলীপ বিশ্বাস, জনতা ব্যাংকের দুবাইয়ের ম্যানেজার আব্দুল মালেক, প্রকৌশলী আবু জাফর, প্রফেসর আব্দুস সবুর, হারামাইন পারফিউমের চেয়ারম্যান মাহাতাবুর রহমান নাসির, আয়উব আলী বাবুল, কাজী মোহাম্ম আলী, ইসমাইল গনি চৌধুরী, আব্দুল আলীম, জিল্লুর রহমান, সেলিম উদ্দিন চৌধুরী, আবু হেনা, শাহ মোহাম্মদ মাকসুদ, কাজী গুলশান আরা, আনসারুল হক আনসার, মীর আহম্মেদ, মাওলানা ফজলুল কবির চৌধুরী, নাসির উদ্দিন কায়সার ও হাজী শফিকুল ইসলাম।

এ আয়োজনে কনস্যুলেটের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছাড়াও বাংলাদেশের কমিউনিটির নেতৃ বৃন্দ সহ আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতৃ বৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

 

আরো পড়ুন