তারাকান্দায় অর্ধেক কংক্রিটের সেতু বাকি অর্ধেক বাঁশের-এভাবেই চলছে ২৩ বছর  

তাপস কর,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার ঢাকুয়া ইউনিয়নের গির্দাপাড়া মাগুরজানি খালের উপর দেখা মিলল এমন এক সেতুর। ইউনিয়নের মাগুরজানি খালের ওপর অনেকটা শান্ত অবস্থায় চেপে বসে আছে আছে এই সেতুটি।

জানা যায়, বন্যার স্রোতে সেতুটির মাঝ বরাবর ভেঙে গেছে। সেটি ২৩ বছর আগের কথা। এরপর অর্ধেক কংক্রিটের সেতু আর বাকি অর্ধেক অংশে বাঁশ দিয়ে জোড়া দেয়া হয়। এভাবেই জোড়াতালির কংক্রিট আর বাশের সাঁকো দিয়ে চলার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এভাবেই গত ২৩ বছর ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছেন জনসাধারণ।

সংযোগ সড়ক নেই, বেকার পড়ে আছে সেতুটি

তারাকান্দা-ধোবাউড়া সড়ক সংলগ্ন তারাকান্দা উপজেলার ঢাকুয়া ইউনিয়নের গির্দাপাড়া মাগুরজানি খালের উপর ওয়ার্ল্ড ভিশন নামে একটি সংস্থা ১৯৯৪ সালে লোহার খুঁটির উপর প্রায় ৬০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৮ ফুট প্রস্থের একটি পাকা সেতু নির্মাণ করেন।

এতে প্রায় ১০০ মিটার দূরের গির্দাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ গির্দাপাড়া, লোনহালা গ্রামের জনসাধারণ যাতায়াতের সুবিধা হয়। কিন্তু ১৯৯৮ সালে বন্যার স্রোতে সেতুর অর্ধেক ভেঙে পড়ে যায়। এতে যানবাহন ও জনসাধারণের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

পরে জনসাধারণের দুর্ভোগ লাঘবে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়। বাঁশ ও লোহার সেতুঁটি মেরামত না করায় জীবনের ঝুকি নিয়ে শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণ যাতায়াত করছেন।

স্থানীয় ঢাকুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন মন্ডল জানান, খালের উপর সেতু নির্মাণের চাহিদা দেয়া হয়েছে। আশা করছি মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে এটি দ্রুত বাস্তবায়ন হবে।

আরো পড়ুন