চরফ্যাশন হাসপাতালে চলছে বিনামূল্যে করোনার টিকাদান কর্মসূচি

আমিনুল ইসলাম, চরফ্যাশন প্রতিনিধি৷৷

আমিনুল ইসলাম, চরফ্যাশন প্রতিনিধি৷৷
ভোলার চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ২য় তলা ২০৪ নম্বর কক্ষে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলছে চল্লিশোর্ধ সকল পেশার মানুষের বিনামূল্যে করোনার টিকাদান কর্মসূচি৷
মোঙ্গল বার (৯ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০টায় সরেজমিনে দেখা যায়, চরফ্যাশন উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন আখন, পৌর মেয়র বাদল কৃষ্ণ দেবনাথ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ভিপি করোনার টিকা নিয়েছেন৷ রেড ক্রিসেন্ট, কমিউনিটি ক্লিনিক, ব্রাক ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক ঝাঁক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন স্বেচ্ছাসেবীর সহযোগিতায় সিনিয়র স্টাফ নার্সদের মাধ্যমে এই টিকাদান কর্মসূচি পরিচালিত হচ্ছে৷ সমগ্র কর্মসূচি পর্যবেক্ষণ করছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইউএইচও ডাঃ শোভন বসাক৷

টিকাদান কর্মসূচির স্বাস্থ্যকর্মী জসিম উদ্দিন জানান, চল্লিশোর্ধ সকল নাগরিক করোনার টিকা নিতে পারবেন৷ টিকা নিতে আসার সময় অবশ্যই জাতীয় পরিচয় পত্র সাথে নিয়ে আসতে হবে৷ গর্ভবতী মা, শিশুকে দুগ্ধদানকারী মা ও এলার্জি জনিত সমস্যা রয়েছে এমন ব্যক্তি করোনার টিকা নিতে পারবেন না৷

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইউ এইচ ও ডাঃ শোভন বসাক বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রথম এ টিকার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নিয়ে মানুষের মধ্যে তৈরি হয়েছে কৌতুহল ও সংশয়। মনে রাখবেন প্রত্যেক টিকারই সাধারণ কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থাকে। এক্ষেত্রেও হয়তো সাধারণ কিছু প্রতিক্রিয়া দেখা যেতে পারে যেমন- হাল্কা ব্যথা বা জ্বর এরচেয়ে বেশি কিছু নয়৷ সরকারিভাবে প্রয়োগকৃত টিকার জন্য কোনও মূল্যে পরিশোধ করতে হবে না টিকা গ্রহীতাকে। কাউকে জোর করেও টিকা দেয়া হবে না৷ তবে আপনি, আপনার পরিবার এবং পুরো সমাজকে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে এ টিকার গুরুত্ব অপরিসীম৷

আরো পড়ুন