চরফ্যাশন পৌরসভায় সকল দলের অংশগ্রহণে উৎসবমুখর প্রচারণা

আমিনুল ইসলাম, চরফ্যাশন প্রতিনিধি৷৷

আমিনুল ইসলাম, চরফ্যাশন প্রতিনিধি৷৷
ভোলার চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচন ২৮ ফেব্রুয়ারী৷ ১২ ফেব্রুয়ারী প্রতীক বরাদ্দের পর মাঠে বিএনপি, আওয়ামিলীগ ও স্বতন্ত্র সহ তিন মেয়র প্রার্থী, ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৭ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী কোন ধরনের সহিংসতা ছাড়াই উৎসবমুখর পরিবেশে জমজমাট প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে৷

শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারী) চরফ্যাশন পৌরসভার প্রান কেন্দ্র চরফ্যাশন শহর ঘুরে দেখা যায়, এক পাশে বিএনপির ধানের শীষ মার্কার মেয়র প্রার্থী সিকদার মোঃ হুমায়ুন কবির অন্য পাশে আওয়ামিলীগের নৌকা মার্কার মেয়র প্রার্থী এইচ এম মোরশেদ নেতা কর্মীদের নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটারদের দোয়া ও সমর্থন চাইছেন৷

এবিষয়ে ভোলা-৪ চরফ্যাশন-মনপুরার জাতীয় সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেন, ভোট হচ্ছে গণতান্ত্রিক চর্চার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। জনগণ যাঁকে চাইবেন, তিনিই নির্বাচিত হবেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে বিএনপি ও আওয়ামিলীগ ছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। এখন পর্যন্ত চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচন কে কেন্দ্র করে কোন ধরনের সহিংসতা বা প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আসেনি নির্বাচন অফিসে৷

নৌকা মার্কার মেয়র প্রার্থী মোঃ মোরশেদ দাবি করে বলেন, চরফ্যাশন পৌরসভায় নৌকা মার্কার জোয়ার চলছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা এই পৌরসভার মেয়র পদটি উপহার দিতে চাই৷ ইনশাআল্লাহ ২৮ ফেব্রুয়ারী বিপুল ভোটের ব্যবধানে আমরা জয়লাভ করবো৷ তাছাড়াও আমাদের স্থানীয় সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেছেন নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালানোর মধ্যে কোন প্রকার সহিংসতা বা উস্কানীমূলক মন্তব্য না করার জন্য৷

এই বিষয়ে বিএনপির মেয়র প্রার্থী সিকদার মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন, চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচনে ধানের শীষের কোন বিকল্প নেই। আমরা জয়ের লক্ষ্যে প্রচারণা চালাচ্ছেন। এখন পর্যন্ত কোন প্রকার সহিংসতা বা বাধা আসেনি৷ আশা করছি আগামী দিনগুলোতেও এমন সহাবস্থান বিরাজ করবে৷

ইতিমধ্যে চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচনে ৬,৭ ও ৯ নং ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন৷

আরো পড়ুন