গাজীপুরে দুইটি দোকানের মালিককে ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা-

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ভেজাল খাদ্য শরীরের জন্য খুবই অপকারী।ভেজাল খাবার গ্রহনের ফলে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গপ্রতঙ্গ যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয় তেমনি সামগ্রিক মানব জীবনে নেমে আসতে পারে ভয়ানক মানবিক বিপর্যয়।আর তাই এই ধরনের অপরাধ মূলক কার্যক্রম বন্ধে ও মানবিক বিপর্যয় রোধকল্পে গাজীপুর জেলা প্রশাসন বিভিন্ন সময় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে আসছে।

তারই ধারাবাহিকতায় ১২ জুন-২০২১ রোজ শনিবার
আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও অপরাধ প্রতিরোধ কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গাজীপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের দত্তপাড়া,টঙ্গী এবং পশ্চিম জয়দেবপুর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে আলীবাবা সুইটস ফ্যাক্টরিতে দেখতে পান নোংরা, দুর্গন্ধ ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মিষ্টি, কেক ও বেকারীর পণ্য তৈরি করছে এবং উৎপাদিত পণ্যের গায়ে উৎপাদনের তারিখ,মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ লেখা নেই।এছাড়াও যেসব কেমিক্যাল ব্যবহার করছে সেগুলো ক্রয়ের কোন চালান কপি নেই এবং ভুয়া বারকোড ব্যবহার করা হয়েছে ও মিষ্টি উৎপাদনে নষ্ট পামওয়েল-ময়দা ব্যবহার করা হচ্ছিল। উল্লেখ্য এই আলীবাবা সুইটস ফ্যাক্টরিতে উৎপাদিত পণ্য ২৫ টিরও বেশি শো- রুম থেকে বিক্রি করা হয়।আর এজন্য ম্যানেজার মোঃ মনির হোসেন (৪০),পিতা- মোখলেছুর রহমান, দত্তপাড়া,টঙ্গী, গাজীপুরকে নিরাপদ খাদ্য আইন ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের আওতায় ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং বিএসটিআই লাইসেন্স না থাকা সত্ত্বেও পণ্যের গায়ে বিজ্ঞাপন হিসাবে প্রচার ও অস্বাস্থ্যকর তেল ব্যবহার করায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের আওতায় সৌম্য ফুড এন্ড বেভারেজ এর মালিক জনাব মিহির কান্তি দাস (৩২), পিতা- মঙ্গল চন্দ্র দাস, পশ্চিম জয়দেবপুর, গাজীপুরকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উল্লেখ্য ২ টি মামলায় সর্বমোট ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

আরো পড়ুন