খোন্দকার আব্দুর রহমান’র লেখা তিনটি ছড়া

                         শ্রমিক
                 কষ্টে হাসি,কষ্টে কাঁদি
                 কষ্টে জীবন গড়ি,
                 কষ্টের মাঝেই একটু সুখের
                 সন্ধান করে চলি।
                 সুখের পরশ বড়ই মধুর
                 ভাবছি বসে আমি,
                 আসবে কি সুখ আমার দ্বারে!
                 সুখযে বড়ই দামি।
                 সন্ধ্যা হলেই ক্লান্ত বেশে
                  শান্ত করি মনকে,
                 কষ্ট বুঝি ঘুচলো এবার
                 আয়েশ করবো কালকে।
                কিন্তু,
                রাত পেরিয়ে প্রভাত হলে
                মনটা আমায় ডেকে বলে,
               আয়েশ করলে কেমনে চলে?
                 শ্রম দিলেইতো শান্তি মেলে।
                   আমার বাবা
             ছোট্ট বেলায় বাবার সাথে
                   হাতটি ধরে রোজ,,
              আমার গাঁয়ে হাটতে যেতাম
                বাবা,নিতো সবার খোঁজ।
               গরিব, দুঃখী,অসহায় হয়ে
                    গায়ে থাকতো যারা,,
                বাবা আমায় বলতো,খোকা
                    আমার স্বজন এরা।
                তুমি যখন বড়ো হবে
                    করবে এদের সেবা,
                 এদের সুখেই ভাববে তুমি
                      সুখী তোমার বাবা।
                জীবনের মোড়
          জীবন ফেরি বড়ই আজব
             আজব রঙের দুনিয়া,
           কখন নিবে কেমন মোড়
              পাইনা কিছু ভাবিয়া।
           ভাবতে গেলে অনেক কিছু
              মনের মাঝে খেলে,
           বাস্তব এলে সব ঝরে যায়
              কিছুই নাহি মেলে।
           অনেক আশা,অনেক চাওয়া
              বেঁধে নিয়ে বুকে,
           জীবন ফেরি চলছে আমার
              ভিন্ন দেশের দিকে।
           আমার জীবন বাক নিয়েছে
              দিচ্ছে শুধু দৌঁড়,
           এ জীবনে হয়তো আবার
               আসবে নতুন মোড়।
             ২৬/৮/২০১৮ইং
                   নাভদিয়া
             কুমারখালি,কুষ্টিয়া।
আরো পড়ুন