খুলনায় গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু ৯ জনের

স্বীকৃতি বিশ্বাস:-

ঋতু বৈচিত্র্যের কারণে ও আবহাওয়ার প্রভাবে ভাইরাস জনিত কারণে বর্ষাকালে জ্বর, সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্ঠ, গলাব্যাথা ইত্যাদি উপসর্গ নিয়ে অনেকেই আক্রান্ত হয়ে থাকেন। যা বর্তমান সময়ের বহুল আলোচিত, সমালোচিত ও মানবসভ্যতার জন্য হুমকি সূরূপ অতি সংক্রমিত কোভিড-১৯ ভাইরাসের উপসর্গের সাথে অনেকাংশে মিল। শহরের সচেতন ও অতিসচেতন জনগণ করোনার লক্ষণ মনে করে টেষ্ট করাছেন।কিন্তু গ্রামের সাধারণ জনগণ এটাকে সিজিনাল অসুখ মনে করে গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নিচ্ছে এবং জনসমাগম স্থলসহ স্বাভাবিক জীবন যাপন করছেন।কিন্তু যখন গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে চিকিৎসায় ভাল হচ্ছে না তখন উপায়ান্তর না পেয়ে উপজেলা বা জেলা পর্যায়ের হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া,করোনার টেস্ট করানো এ কাজ গুলো করছেন।আর এ সময় যখন করোনা পজেটিভ সনাক্ত হচ্ছে তখন ভারতীয় অতি সংক্রমণশীল ডেল্টা ইতিমধ্যে অনেকের শরীরেই সংক্রমিত করে ফেলছে। আর তাই এখন যাদের উল্লেখিত লক্ষণগুলো দেখা যাচ্ছে তাদের আইসোলেশন ও জন সংস্পর্শ এড়িয়ে চলার জন্য উদ্বুদ্ধ করা ও অতি দ্রুত করোনার টেষ্ট করানোর ব্যবস্থা করলে হয়তো সারাদেশের করোনার হুহু করে অতিসংক্রমণ ও মৃত্যু রোধ করতে অনেকাংশেই সফলতা আসতো।
এরসাথে বর্তমান সময়ে চলমান লকডাউন ও এলাকা ভিত্তিক লকডাউনের সাথে রেডজোন সম্পন্ন এলাকা গুলিতে রেড এলার্ট জারি করা হলেও করোনার অতি সংক্রমণ ও মৃত্যু পূর্বের থেকে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে।

আজ ২১ জুন-২০২১ রোজ সোমবার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ও করোনা ইউনিটের মুখপাত্র জানান, গত ২৪ ঘন্টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের ৪ জন করোনা পজেটিভ ছিলেন ও অন্য জনের করোনা ভাইরাসের উপসর্গ ছিল।এছাড়াও একটি বেসরকারি হাসপাতালে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে যাদের ২ জন করোনা পজেটিভ ছিলেন ও ২ জনের শরীরে করোনা উপসর্গ ছিল। সর্বোসাকুল্যে ৯ জনের মধ্যে সরাসরি করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৬ জন ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ৩ জন মৃত্যু বরণ করেছেন।

অন্যদিকে গত ২৪ ঘন্টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে ৪৩৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১১ জনের করোনা পজেটিভ সংক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে ফলে আক্রান্তের হার ২৫.৪০ শতাংশ। যার মধ্যে খুলনার ৮০ জন, বাগেরহাটের ১৯ জন, যশোরের ৪ জন, নড়াইলের ২ জন, গোপালগঞ্জের ২ জন, ঝিনাইদহের ২ জন ও পিরোজপুরের ০২ রয়েছে।
বর্তমানে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে ভর্তি আছেন ১৬১ জন।রেড জোনে ১০২ জন, ইয়োলো জোনে ২০ জন,এইচডিইউতে ১৯ জন এবং আইসিইউতে ২০ জন রোগী ভর্তি আছেন।

আরো পড়ুন