এইচএসসির ফলাফল মূল্যায়ন হবে ‘আন্তর্জাতিক মানের’, ফল ডিসেম্বরের মধ্যে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মহামারি করোনার কারণে স্থগিত থাকা এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শেষ পর্যন্ত বাতিল করা হয়েছে। জেএসসি ও এসএসসির ফলের গড় অনুযায়ী এবারের এইচএসসির ফল নির্ধারণ করা হবে। আর এই ফলাফল জানানো হবে ডিসেম্বরে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রক্রিয়া জানুয়ারিতেই শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। আর শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল জানান, ফলাফল মূল্যায়ন হবে আন্তর্জাতিক মানের।

বুধবার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব বলেন।

ডা. দীপু মনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে এ বছর এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। পরীক্ষার পরিবর্তে শিক্ষার্থীদের জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এইচএসসিতে মূল্যায়ন করা হবে। ডিসেম্বরের মধ্যে মূল্যায়নের ফল প্রকাশ করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জেএসসি ও এসএসসির ফলের গড় অনুযায়ী এইচএসসির ফল নির্ধারণ করা হবে। তবে কি পদ্ধতিতে গ্রেড নির্ধারণ করা হবে সেটি নির্ধারণ ও পরামর্শের জন্য সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, শিক্ষা বোর্ড ও বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হবে।’

দীপু মনি আরও বলেন, ‘বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে যে টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হবে তাদের আগামী নভেম্বররের প্রথম সপ্তাহে প্রতিবেদন দিতে বলা হবে। আর এর ভিত্তিতেই ডিসেম্বরের মধ্যে তারা এইচএসসির চূড়ান্ত মূল্যায়ন ঘোষণা করতে চান, যাতে জানুয়ারি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, ‘পরীক্ষা না নিয়ে পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন পরীক্ষা বোর্ডগুলোর জন্য একেবারেই নতুন। ফলে কীভাবে মূল্যায়ন করা হলে ফলাফল দেশে ও বিদেশে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করবে এবং শিক্ষার্থীদের পরবর্তী জীবনে এর বিরুপ প্রভাব পড়বে কিনা সে বিষয়গুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা দুটি পাবলিক পরীক্ষা অতিক্রম করে এসেছে জেএসসি ও এসসসি। সেই দুটি পরীক্ষায় তাদের যে ফলাফল নির্ধারণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরি, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহাবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হকসহ সকল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা।

আরো পড়ুন