ইদের পরে যশোরে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৬ ও নতুন সনাক্ত ২১

স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোরঃ

অদৃশ্য সংক্রমণ ভাইরাস করোনার সংক্রমণে সমগ্র বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশের অবস্থাও অনেকাংশেই বিপর্যস্ত।করোনা ডেডিকেটড হাসপাতাল গুলিতে আইসিইউ ফাঁকা নেই, বেড ফাঁকা না থাকায় মেঝেতে রেখে রোগীদের চিকিৎসা করাতে গিয়ে চিকিৎসক, নার্সসহ সংশ্লিষ্ট সকলেই হিমসিম খাচ্ছেন। কিন্তু ইদের কারণে করোনা টেষ্ট কম হওয়ায় গত ২ দিন যশোরে করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু যথেষ্ট কম মনে হলেও বাস্তব চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন কারণ করোনা রোগীদের একটা বিরাট অংশ বাড়ি থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
এসব তথ্য পাওয়া যায় যশোরে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহকারী বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন ও ব্যক্তি পর্যায় থেকে।যশোরে মৈত্রী ভলেন্টিয়ার্স,বিবর্তন যশোর, উদীচীসহ যারা ফ্রিতে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করছেন তাদের ভাষ্যমতে ইদের দিন থেকে অদ্যাবোধি সকল প্রতিষ্ঠান সকলেই ব্যক্তি পর্যায়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করছেন কমপক্ষে ২০০ শতাধিকেরও অধিক এবং তাদের একটি সিলিন্ডারও বসে নেই। তাই এই রিপোর্টের সাথে বাস্তবতার মিল করা সত্যিই কঠিন।

আজ ২৩ জুলাই -২০২১ রোজ শুক্রবার যশোর জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ও সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য কর্মকর্তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ৬ জন মৃত্যু বরণ করেছেন। তারমধ্যে ৫ জন সরাসরি করোনা পজেটিভ রোগী ও অন্য একজন করোনার উপসর্গযুক্ত রোগী। এপর্যন্ত যশোর জেনারেল হাসপাতালে করোনা পজেটিভ রোগী মৃত্যু বরণ করেছেন ২৯৯ জন। বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৫৫ জন। যশোরে আজ পর্যন্ত করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে ১৭৫৮৮ জন।সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২১৯২ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় ১০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে ২১ জনের শরীরে। সনাক্তের হার ২১ শতাংশ। আজকে সনাক্ত ২১ জনের মধ্যে যশোর সদরে ১২ জন, ঝিকরগাছায় ৫ জন, চৌগাছায় ২ জন, কেশবপুরে ১ জন ও শার্শায় একজন রয়েছেন। যশোরের মনিরামপুর, অভয়নগর ও বাঘারপাড়ায় আজ কোন করোনা পজেটিভ রোগী সনাক্ত হয়নি।

আরো পড়ুন